National

মৃত বাবাকে সামনে বসিয়ে বিয়ে করলেন ছেলে

বাবার স্বপ্ন ছিল ছেলের বিয়ে তিনি সামনে বসে দেবেন। কিন্তু তার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়। বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে তাই এবার ছেলে ফিরিয়ে আনলেন বাবাকে।

সন্তানদের নিয়ে কত স্বপ্নই তো দেখেন বাবামা। কত ইচ্ছা সযত্নে বাঁচিয়ে রেখে সন্তানকে বড় করে তোলেন। তেমনই এক পিতার ইচ্ছা ছিল তাঁর ২ ছেলের বিয়ে তিনি সামনে বসে থেকে দেবেন।

ছেলেদের বিয়ের উদ্যোগ চলাকালীন ২০২০ সালে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পরা ব্যাধি কেড়ে নেয় ওই ব্যক্তির প্রাণ। হাসপাতালে ১৫ দিনের লড়াই শেষে মৃত্যু হয় তাঁর।

ওই ব্যক্তির মৃত্যু পরিবারে অন্ধকার নামিয়ে আনে। সেই শোক বুকে করেই গত বছর বিয়ে হয় বড় ছেলের। এবার ছিল ছোট ছেলের পালা।

পেশায় আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক ছোট ছেলে আতীশ কিন্তু আগেভাগেই পরিকল্পনা করেছিলেন বাবার ইচ্ছা তিনি পূরণ করবেন।

সেইমত দেখা গেল তাঁর বিয়েতে হাজির তাঁর বাবা এমএইচ রমেশ। পুরো বিয়ে বসে দেখলেনও। তাঁর সামনেই বিয়ের যাবতীয় রীতি পালিত হয়।

২ ভাই জানিয়েছেন, তাঁদের বাবার ইচ্ছাপূরণ করতে তাঁরা দেড় বছর আগেই তাঁদের বাবার একটি সিলিকন মূর্তি বানানোর অর্ডার দেন। দেড় বছর লাগে সেটি তৈরি হতে।

এর মধ্যে বড় ছেলের বিয়ে হওয়ায় তাঁর বিয়েতে বাবার সিলিকন মূর্তি বসানো যায়নি। কিন্তু ছোট ছেলের ক্ষেত্রে বাবার সেই মূর্তি এনে বসানো হয় চেয়ারে। তারপর তার সামনেই হয় বিয়ে।

মূর্তিটি এতটাই নিখুঁত করে তৈরি করা যে হঠাৎ দেখে বোঝার উপায় নেই জীবন্ত কিনা। তবে ছোট ছেলে বাবার মূর্তি সামনে রেখে বিয়ে করতে পেরে বেজায় খুশি। তাঁর মনে হয়েছে এভাবেই তাঁর বাবার স্বপ্ন পূরণ হল। ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকের মাইসুরু জেলার নাঞ্জানগুদ শহরে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.