National

জন্ম নিচ্ছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ, রাজ্যে তার প্রভাব কেমন জানাল হাওয়া অফিস

ডিসেম্বর পড়ে গেলেও শীতের দেখা নেই। বরং এখনও বৃষ্টির ভ্রুকুটি পিছু ছাড়ছে না। ফের বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে ঘূর্ণিঝড়। যার জেরে সপ্তাহ শেষে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল হাওয়া অফিস।

আপাতত তার অবস্থান মধ্য আন্দামান সাগরে। ক্রমে এই নিম্নচাপ বঙ্গোপসাগরের ওপর এসে পড়বে। বৃহস্পতিবার তা বঙ্গোপসাগরের মধ্যভাগে অবস্থান করবে। সেখানেই শক্তি বাড়াবে সেটি। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সেটি একটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের আকার নিতে পারে।

ঘূর্ণিঝড়ের আকার নিলে সেটির নাম হবে ‘জাওয়াদ’। ক্রমে জাওয়াদ উত্তর পশ্চিম দিকে এগোতে শুরু করবে। শনিবার সকালে তা অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর ভাগ ও ওড়িশার দক্ষিণ ভাগ দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করতে পারে।

সেক্ষেত্রে এখানে বেশ কিছু জায়গায় অতিপ্রবল বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়া বইবে। এমনটা না হলে তা আরও কিছুটা সরেও আসতে পারে। সেক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

জাওয়াদের প্রভাবে পশ্চিমবঙ্গের কিছু জায়গায় অতিভারী বৃষ্টি ও কিছু জায়গায় সাধারণ বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। ফলে সপ্তাহ শেষে যে একটা বৃষ্টির জন্য বঙ্গবাসীর মানসিকভাবে তৈরি থাকা উচিত তা পরিস্কার করে দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এমনকি জাওয়াদের প্রভাবে অসম, মেঘালয় ও ত্রিপুরাতেও বৃষ্টির সম্ভাবনা যথেষ্ট বলে জানানো হয়েছে।

যা পরিস্থিতি তাতে সপ্তাহ শেষে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং ওড়িশা তো বটেই সেইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গেও কমবেশি বৃষ্টির ভ্রুকুটি স্পষ্ট। এ সপ্তাহে যারফলে শীত জাঁকিয়ে পড়া দূরে থাক তার পরশও তেমন পাওয়া যাবে বলে মনে করছেননা কেউ।

তবে বৃষ্টি হয়ে গেলে তা শীত ডেকে আনতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে আগামী সপ্তাহে কি শীত আসার সম্ভাবনা রয়েছে? সে প্রশ্নের উত্তর জানতে মুখিয়ে রয়েছেন বৃষ্টিতে জেরবার বাংলার মানুষ। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button