National

পড়ে রইল জুতো জোড়া, ১৫ বছরের ছেলেটাকে টেনে নিয়ে গেল কুমির

তার জুতোজোড়া কালি নদীর ধারে পড়েই রইল। ১৫ বছরের ছেলেটাকে লাফিয়ে পড়ে টেনে নিয়ে গেল অতিকায় কুমির। দাঁড়িয়ে দেখলেন কয়েকজন।

এক কিশোর কালি নদীর ধারে বসে মাছ ধরছিল। নদীর ধারে বসে ছিপ ফেলে অপেক্ষায় ছিল কখন বঁড়শিতে গাঁথবে একটা মাছ। তখন বিকেল নেমে এসেছে। নদীর ধারে বসা ১৫ বছরের ছেলেটাকে দেখতে পেয়েছিলেন কাছাকাছি থাকা কয়েকজন।

তাঁরাই দেখেন আচমকা একটি কুমির জল থেকে উঠে এসে নিমেষের মধ্যে ছেলেটাকে ধরে নিয়ে ফের জলে চলে গেল। কুমিরের মুখে অসহায়ের মত আটকে রইল ছেলেটা। আর আরও অসহায়ের মত হায় হায় করে ওঠা ছাড়া আর কিছুই করতে পারলেন না আশপাশের মানুষজন।

এটা ছিল গত রবিবার বিকেলের ঘটনা। তারপর কালি নদী তোলপাড় করে খোঁজা চলছে কিশোরের। যদি তার দেহাংশও পাওয়া যায় তাও দেখা হচ্ছে। এমনকি এই খোঁজ চালানোর জন্য ড্যাম থেকে জল ছাড়াও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনও কোনও খোঁজ নেই ওই কিশোরের।

কর্ণাটকের দান্দেলি শহরে ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় স্থানীয় মানুষ ক্ষুব্ধ। তাঁদের দাবি ওই অঞ্চলে ক্রমশ বাড়ছে কুমিরের হানা। কিন্তু কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন।

কিছুদিন আগেই শহরে ঢুকে পড়েছিল একটি বিশাল কুমির। এদিন নদীর ধার থেকে এক কিশোরকে নিয়ে চলে গেল। এভাবে ওই অঞ্চলের মানুষের সুরক্ষা কমছে।

এদিকে এই দান্দেলি শহর অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র। এখানে বহু মানুষ ব়্যাফটিং করতে বা ঘুরতে আসেন। পর্যটকদেরই বা সেক্ষেত্রে সুরক্ষা কোথায় সে প্রশ্নও উঠছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button