National

মহিলাকে ফেলে তাঁর ওপর চড়ে বসে মার পুলিশের, ছবি ভাইরাল

ভয়ংকর দৃশ্য দেখল গোটা দেশ। এক মহিলা মেঝেতে পড়ে আছেন। আর তাঁর ওপর চড়ে বসেছেন এক পুলিশকর্মী। মারধর করছেন। যদিও পুলিশ অন্য ব্যাখ্যা দিচ্ছে।

একজন পুলিশকর্মী চড়ে বসেছেন মেঝেতে পড়ে থাকা এক মহিলার ওপর। মারধর করছেন। মহিলাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন অন্য এক মহিলা। অন্য একজন পুলিশকর্মীকে টেনে মহিলার ওপর থেকে সরানোর চেষ্টা করছেন। যে ছবি কার্যত ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পুলিশের এমন আচরণ নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। একজন মহিলাকে এভাবে মেঝেতে ফেলে এক পুরুষ পুলিশকর্মী কীভাবে মারধর করতে পারেন, এ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে।

পুলিশের তরফে অবশ্য পাল্টা দাবি করা হয়েছে, উত্তরপ্রদেশের কানপুর দেহাত জেলার দুর্গাদাসপুর গ্রামে তারা যখন শিবম যাদব নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে যায় তখন পুলিশের ওপর শিবমের বাড়ির মহিলারা চড়াও হন।

পুলিশকে আটকাতে শিবমের স্ত্রী ও মা ঝাঁপিয়ে পড়েন পুলিশের ওপর বলে দাবি পুলিশের। তখনই সাব-ইন্সপেক্টর পোস্টের পুলিশ আধিকারিক মহেন্দ্র প্যাটেল ধাক্কাধাক্কিতে ওই মহিলার ওপর পড়ে যান। শিবমের স্ত্রী আরতি যাদবের ওপর পড়ে যান ওই পুলিশ আধিকারিক।


যদিও যাদব পরিবারের দাবি, পুলিশ ওই মহিলার ওপর চড়ে বসে তাঁকে মারধর করে। অবশেষে গ্রামবাসীরা ওই মহিলাকে উদ্ধার করেন।

যাদব পরিবারের আরও দাবি, মহেন্দ্র প্যাটেল শিবমকে ছেড়ে দেওয়ার বিনিময়ে টাকা চেয়েছিলেন। তা দিতে অস্বীকার করায় এই পরিণতি।

শিবমের স্ত্রী আরতি জানিয়েছেন, তিনি পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছিলেন কেন তাঁর স্বামীকে গ্রেফতার করা হচ্ছে? তাঁর অপরাধ কী? রেগে গিয়ে ওই পুলিশ আধিকারিক প্রথমে তাঁকে চড় মারেন। টাল সামলাতে না পেরে তিনি পড়ে যান। তখন তাঁর ওপর চড়ে বসেন মহেন্দ্র প্যাটেল। তারপর তাঁকে প্রবল মারধর করা হয়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button