National

প্যারোলে কারাগারের বাইরে স্বঘোষিত ধর্মগুরু রাম রহিম

২ মহিলাকে ধর্ষণ ও ১ সাংবাদিককে খুনে দোষী সাব্যস্ত ২০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংকে প্যারোলে মুক্তি দিল প্রশাসন।

প্যারোলে মুক্তি পেয়ে কারাগারের বাইরে বার হল ধর্ষণ ও খুনে দোষী সাব্যস্ত স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিং। তার বিরুদ্ধে তারই আশ্রমের ম্যানেজারকে হত্যা করার অভিযোগও রয়েছে। যখন গুরমিত রাম রহিম সিংকে ২০১৭ সালে গ্রেফতার করা হয় তখন হরিয়ানা জুড়ে তাণ্ডব চালিয়েছিল তার ভক্তরা।

তার আশ্রমের ২ সন্ন্যাসিনীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে রাম রহিমের বিরুদ্ধে। এক সাংবাদিককে হত্যারও অভিযোগ ছিল। এই মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয় রাম রহিম। তাকে ২০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এমন এক অপরাধী গত বছর অক্টোবরে ১ দিনের জন্য মাকে দেখতে যাওয়ার জন্য প্যারোলে মুক্তি পেয়েছিল। এবারও অসুস্থ মাকে দেখতে যাওয়ার জন্য প্যারোলে মুক্তি পেল সে।

হরিয়ানার রোহতকের সুনারিয়া জেলে বন্দি গুরমিত রাম রহিম সিং গত ১৭ মে মাকে দেখতে যাওয়ার জন্য প্যারোলে মুক্তির আবেদন করে। সেই প্যারোল মঞ্জুর হয় তার।


২১ মে কারাগার থেকে কঠোর নিরাপত্তায় তাকে বার করা হয়। তারপর সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় গুরুগ্রামে। তবে এখন সে কোথায় আছে তা পরিস্কার নয়।

এদিকে তাকে প্যারোলে এভাবে মুক্তি দেওয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন খুন হওয়া সাংবাদিক রামচন্দ্র ছত্রপতির ছেলে অংশুল।

তাঁর মতে, সরকারের এমন এক অপরাধীকে ছেড়ে দেওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত। এটা মূর্খের মত কাজ বলেও দাবি করেন অংশুল। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button