National

ছাদনাতলায় দাঁড়িয়ে অঙ্ক পরীক্ষা, ২-এর নামতা ভাঙল বিয়ে

এমন কাণ্ডও যে ঘটতে পারে তা বোধহয় কল্পনাও করতে পারেননি যুবক ও তাঁর পরিবার। ছাদনাতলা থেকে খালি হাতে ফিরতে হল বর ও বরযাত্রীকে।

পরীক্ষার হল হোক বা বাড়িতে অঙ্ক স্যারের সামনে অঙ্ক পরীক্ষা হতেই পারে। তা বলে ছাদনাতলায় অঙ্ক পরীক্ষা! তাও আবার ২-এর ঘরের নামতা! এমনটা তো স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি বরের বেশে সদর্পে দাঁড়িয়ে থাকা যুবক। ভাবতে পারেনি তাঁর পরিবারও।

বিয়ের সব ঠিকঠাক। বরকে নিয়ে বরযাত্রীও হাজির বিয়ের আসরে। তৈরি কনেও। ছাদনাতলায় ২ পক্ষ একত্র। আর কিছু সময়ের অপেক্ষা। তারপরই মালাবদল।

বর ও কনে সামনাসামনি। মাঝে মন্ত্রোচ্চারণ করছেন পুরোহিত। সকলের মুখেই হাসি, আনন্দ। কিন্তু ঠিক সেই মুহুর্তেই হল ছন্দপতন।

কনে হঠাৎ সোজা তাকান তাঁর হবু স্বামীর দিকে। তারপর সময় নষ্ট না করে তাঁকে ২-এর নামতা বলতে বলেন। নামতা বলতে হবে শুনে নামতা ভুলে আমতা আমতা করতে থাকেন বর। কিছুতেই ২-এর নামতা আর তিনি বলে উঠতে পারলেন না।

ব্যাস, এখানেই শেষ। কনে সটান মালাবদল থামিয়ে বেরিয়ে আসেন মণ্ডপ থেকে। সাফ জানিয়ে দেন অশিক্ষিত কাউকে তিনি বিয়ে করতে পারবেননা।

কনের বাড়ির দাবি বর পক্ষ তাঁদের বরের পড়াশোনা নিয়ে অন্ধকারে রেখে দিয়েছিল। ফলে তাঁরা জানতেনই না যে বর পড়াশোনা জানেন না। কখনও স্কুলে যাননি। কনের একটা সন্দেহ ছিল। তাই একদম ছাদনাতলাতেই বরের অঙ্ক পরীক্ষা নেন তিনি। আর তাতেই ডাহা ফেল।

এই ঘটনায় পরে মধ্যস্থতা করেন গ্রামের বয়স্ক মানুষরা। কনে পক্ষ যা যা দিয়েছিল তা তাঁদের ফিরিয়ে দিতে বরপক্ষকে নির্দেশ দেন তাঁরা। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের মাহোবায়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button