National

২ বছর পর বীর-জারার মিলন দেখল সীমান্ত

বিয়ের পর আর স্বামীদের কাছে আসতে পারেননি। অবশেষে ২ বছর পর স্বামীস্ত্রীদের মিলনে খুশির হাওয়া বয়ে গেল সীমান্তে।

জয়পুর : ভারত থেকে পাকিস্তানে গিয়েছিলেন বিয়ে করতে। জয়সলমীর ও বারমের থেকে বরযাত্রী ঠিকভাবেই পৌঁছেছিল পাকিস্তানে। বিয়েও সুন্দরভাবে সুসম্পন্ন হয়েছিল। কিন্তু বিয়ে করে আর নববধূদের নিয়ে নিয়ে ফিরতে পারেননি রাজস্থানের বাসিন্দা কৈলাস সিং, বিক্রম সিং আর মহেন্দ্র সিং।

একাই ফিরে আসতে হয়েছিল তাঁদের। না, কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি তাঁদের সঙ্গে। পুরোটাই সীমান্ত পার হওয়ার অনুমতি সংক্রান্ত সমস্যার ফল।

এ ঘটনা ২ বছর আগের। তারপর কেটে গেছে অনেকগুলো দিন। এরমধ্যে স্ত্রীদের ফেরানোর কম চেষ্টা করেননি তাঁরা। অবশেষে কৈলাস এবং মহেন্দ্র তাঁদের স্ত্রীদের ফিরে পেলেন ২ বছর পর।

এ বছর আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিন পাকিস্তানের বাসিন্দা চগন কানওয়ার আর কৈলাস বাঈ ওয়াঘা-আটারি সীমান্ত দিয়ে ভারতে তাঁদের শ্বশুরবাড়িতে আসলেন।


সীমান্ত পার করার সময় তাঁদের সঙ্গে তাঁদের পরিবারের লোকেরা ছিলেন। সেখানে করোনা পরীক্ষা করেই তাঁদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হয়। যদিও বিক্রমের স্ত্রী এখনও ভিসা না পেয়ে রয়েছেন পাকিস্তানেই।

২০১৯-এ পুলওয়ামা নিয়ে উত্তাল হয়েছিল ভারত ও পাকিস্তানের সম্পর্ক। তাই বিয়ে করেও কৈলাস, মহেন্দ্র ও বিক্রমকে ফিরে আসতে হয়েছিল রাজস্থানে নিজেদের বাড়িতে। তখন কোনওভাবেই ভিসা পাননি তাঁদের স্ত্রীরা।

২ বছর ধরে অনেক চেষ্টার পর কেন্দ্রীয়মন্ত্রী কৈলাস চৌধুরির সহযোগিতায় নিজেদের স্বামীর কাছে ফিরতে পারলেন চগন ও কৈলাস বাঈ। স্ত্রীদের পেয়ে মন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন কৈলাস ও মহেন্দ্র। বিক্রমের স্ত্রীকেও ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button