National

জলের তলায় মুম্বই, জারি লাল সতর্কতা

গত রাত থেকে প্রবল বৃষ্টিতে গোটা মুম্বই স্তব্ধ। অধিকাংশ এলাকা জলের তলায় চলে গেছে। এর মধ্যেই আরও প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে।

মুম্বই : বর্ষাকালে শহরের প্রবল বৃষ্টির কোপে পড়ে স্তব্ধ হয়ে যাওয়া নতুন নয়। প্রতি বছরই এমন কয়েকটা দিন কাটান মুম্বইবাসী। কার্যত গৃহবন্দি থাকতে হয় তাঁদের। জলের তলায় চলে যায় মুম্বই।

জলের তলায় হারিয়ে যায় মুম্বইয়ের লাইফ লাইন বলে পরিচিত লোকাল ট্রেনের লাইন। এবার করোনা আবহে পরিস্থিতি একটু আলাদা। লাইফ লাইন অনেক আগে থেকেই স্তব্ধ। তবে বৃষ্টি তার নিজের মতই হয়েছে।


মুহুর্তে পান আপডেট, Join আমাদের WhatsApp Channel

গোটা মুম্বই শহরটাকে জলের তলায় নিয়ে গেছে নাগাড়ে অতিভারী বৃষ্টি। তার ওপর মরার ওপর খাঁড়ার ঘায়ের মত যোগ দিয়েছে ভরা কোটাল। ফলে সমুদ্রও অশান্ত হয়ে ওঠে মঙ্গলবার।

গত সোমবার রাখি থাকায় মুম্বইয়ের অধিকাংশ অফিস ছুটি ছিল। আর মঙ্গলবার বৃষ্টির জেরে শহরের বেহাল পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সব অফিসে ছুটি ঘোষণা হয়েছে। কেবলমাত্র জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যাঁরা যুক্ত তাঁদের কাজে আসতে হবে। বাকিদের অফিস ছুটি।

মুম্বইয়ের সিওন, কিংস সার্কল, ওয়াডলা, দাদর, কুরলা, মুলুন্দ, বোরিভলি, আন্ধেরি, কান্দিভালি, দাহিসার সহ বিভিন্ন এলাকা কার্যত বানভাসি। এদিকে চিন্তা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস। আগামী ২৪ ঘণ্টা প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে তারা। ফলে পরিস্থিতি আরও জটিল আকার নিতে চলেছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

বৃষ্টি রাত থেকে টানা চলার পর অবশ্য বেলার দিকে কিছুটা কমে। তবে জল নামেনি। বৃহন্মুম্বই পুরসভা পাম্প চালিয়ে জল নামানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে বৃষ্টি হতে থাকলে তাতে কতটা লাভ হবে তা নিয়ে সন্দিহান মুম্বইবাসী।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় থানে, পুনে সহ মুম্বইয়ের আশপাশের জেলাগুলিতে লাল সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। এদিকে প্রবল বৃষ্টির জেরে পশ্চিমঘাট পর্বতমালার আশপাশের বিভিন্ন জায়গায় ধস নেমেছে। খুব প্রয়োজন ছাড়া মুম্বই সহ লাল সতর্কতা জারি করা স্থানে বসবাসকারীদের বাড়ি থেকে বার হতে মানা করা হয়েছে।

বৃষ্টি কিন্তু থামার নাম নিচ্ছে না। ফলে পরিস্থিতি জটিলতর হয়ে উঠছে। করোনা নিয়ে নাজেহাল পরিস্থিতিতে মুম্বইয়ে এই প্রবল বৃষ্টি সমস্যা আরও বাড়াল সন্দেহ নেই। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *