State

লেনিন, নেতাজি, স্বামীজির মূর্তি ভাঙা মেনে নেব না : মুখ্যমন্ত্রী

ত্রিপুরায় বাম রাজত্বের অবসান ঘটিয়ে ঝোড়ো জয় পেয়েছে বিজেপি। উত্তরপূর্ব ভারতের এই রাজ্যে প্রথম সরকার গড়তে চলেছে তারা। কিন্তু ত্রিপুরায় ফলাফল বার হওয়ার পর থেকেই সিপিএমের তরফে হিংসার অভিযোগ জানানো হচ্ছিল। গত সোমবার লেনিনের একটি মূর্তি ভেঙে দেওয়ার পর সেই অভিযোগ আরও জোরদার হয়েছে। মঙ্গলবার বাঁকুড়ার পাত্রসায়রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রীতিমত হুঁশিয়ারির সুরেই বলেন, এভাবে স্বামীজি, নেতাজি, লেনিনের মূর্তি ভাঙা তিনি কিছুতেই মেনে নেবেন না। প্রতিবাদ করবেন। কেউ করুক বা না করুক, তিনি এর প্রতিবাদে সোচ্চার হবেন। বিজেপি অসহিষ্ণুতার রাজনীতি করছে বলেও অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, এটা গণতন্ত্র নয়। বিজেপিকে হুঁশিয়ার করে মমতা বলেন, অতি বাড় বেড় না, ঝড়ে পড়ে যাবে।

অন্যদিকে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি খতিয়ান তুলে ধরে দাবি করেন, ত্রিপুরায় ফল বার হওয়ার পর এখনও পর্যন্ত রাজ্য জুড়ে দেড় হাজারের ওপর বামপন্থীদের বাড়িতে আক্রমণ হয়েছে। ১৩৪টি সিপিএম কার্যালয় আক্রমণের শিকার হয়েছে। তাঁদের ৬৪টি দলীয় কার্যালয় সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। ২০৮টি দলীয় কার্যালয় দখল করে নিয়েছে বিজেপি। এই ধরণের হিংসা অগণতান্ত্রিক বলে দাবি করেন ইয়েচুরি।

এদিকে বিজেপির বিরুদ্ধে আঙুল উঠলেও তাতে গুরুত্ব দিতে নারাজ ত্রিপুরার বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের পাল্টা দাবি এই ধরণের কাজে তাঁদের কোনও হাত নেই। এটা রাজ্যের মানুষের মধ্যে জমে থাকা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। বিজেপির কাজ নয়। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ আরও সুর চড়িয়ে বলেছেন, এতে সিপিএমের দুঃখ পাওয়ার কিছু নেই। তারা এতদিন অনেক অত্যাচার করেছে, এখন পাল্টা কিছুটা তো সহ্য করতেই হবে!


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button