World

হেলায় পড়ে থাকা অমূল্য মূর্তি শহরে ফিরল ৩০ বছর পর

নির্মাণকাজের জায়গায় হেলায় পড়ে থাকা একটি মূর্তি কর্মরত এক ব্যক্তি তুলে এনেছিলেন বাড়িতে। সেখানেও তা বাগানেই পড়েছিল। অবশেষে তা ফিরল নিজের শহরে।

নব্বইয়ের দশকে তাঁর বাবা একটি নির্মাণ সংস্থায় কর্মরত ছিলেন। সেখানে একটি মূর্তি একটা কোণায় পড়ে থাকতে দেখেন। জঞ্জালের মত পড়ে থাকা মূর্তিটি না ফেলে দিয়ে তিনি নিয়ে আসেন তাঁর বাড়িতে। যতই হোক একটা শিল্প তো। খরচ করে কিনতে তো হয়নি। কেবল কুড়িয়ে বাড়িতে নিয়ে আসা।

তিনি সেটি এনে নিজের বাড়ির বাগানে রেখে দেন। সেখানেও কার্যত অবহেলাতেই পড়েছিল সেটি। তারপর অনেক বছর কেটে যায়। হালে ওই ব্যক্তির ছেলে মূর্তিটি সম্বন্ধে খোঁজ নিতে শুরু করেন।

আর তখনই তিনি জানতে পারেন আমেরিকার কেন্টাকি রাজ্যের লুইভিল শহরের শিল্পসংগ্রহ বিভাগ এই মূর্তিটিই খুঁজে বেড়াচ্ছে। মূর্তিটি আদপে বাঁশি বাজানোর ভঙ্গিতে এক গ্রিক দেবতার। যা এক বিখ্যাত শিল্পীর সৃষ্টি। মূল্য অমূল্য।

ওই পরিবার বুঝতে পারে যে মূর্তি অবহেলায় তাদের বাগানে পড়ে রোদ, জল খাচ্ছে তার মূল্য অপরিসীম। ৩০ বছর আগে লুইভিল শহর থেকে সে মূর্তি খোয়া গিয়েছিল।


এটা জানার পর ওই ব্যক্তি দ্রুত তা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। লুইভিল শহরের শিল্পসংগ্রহ বিভাগ একথা জানতে পেরে প্রভূত আপ্লুত হয়। তারা ৩০ বছর পর এই অমূল্য মূর্তি ফেরত পেয়ে অভিভূত।

অবহেলার কারণে মূর্তিটির গায়ে কিছু জায়গায় ফাটল দেখা গেছে। তবে তা বড় কিছু নয় বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা।

মূর্তিটিকে ঠিকঠাক করে শহরের একটি জায়গায় বসানো হবে। যাতে সব মানুষ তা দেখার সুযোগ পান। মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলিতে এই খবর ছড়িয়ে পড়ে।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button