Kolkata

কলকাতায় জগদ্ধাত্রী পুজোয় উৎসবের মেজাজ, চন্দননগরে আজ নবমী

বাংলার মানুষ তো বটেই, হয়তো বলা ভাল সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা বাঙালি জানেন চন্দননগরের জগদ্ধাত্রী পুজোর কথা। জগদ্ধাত্রী পুজো মানেই চন্দননগর। কলকাতার অদূরে এই পুরনো ফরাসি উপনিবেশের অলিতে গলিতে সাড়ম্বরে পালিত হয় জগদ্ধাত্রী পুজো। প্রতিমার বিশালত্ব এখানকার অন্যতম বৈশিষ্ট্য। আর এক কারণে মানুষ চন্দননগরে ছুটে যান। তাহল আলোর খেলা। জগদ্ধাত্রী পুজোয় চন্দননগরে যে আলোর খেলা নজর কাড়ে তা চোখ জুড়নো। সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হয় সমসাময়িক বিষয়ে চেঞ্জার আলোর রংবাহারি রোশনাই। চন্দননগরের দুর্গাপুজোই হল এখানকার জগদ্ধাত্রী পুজো। চন্দননগরের নামটাই সকলের জানা। তবে একই জাঁকজমকে জগদ্ধাত্রী পুজো হয় পাশের মানকুণ্ডু, ভদ্রেশ্বরেও।

চন্দননগরে ৪ দিন ধরেই হয় জগদ্ধাত্রী পুজো। সপ্তমী, অষ্টমী, নবমী ও দশমী। তবে অন্যান্য জায়গায় জগদ্ধাত্রী পুজো হয় নবমীর দিন। তবে পুরো পুজোটাই হয়। ৩ প্রহরে হয় ৩টি পুজো। ফলে নবমী পর্যন্ত পুজো নবমীর দিনেই করে ফেলা হয়। কলকাতায় এদিনটা সেই নবমী তিথি। জগদ্ধাত্রী পুজোর দিন। যদিও এবার গত মঙ্গলবারও নবমী তিথি ছিল। বুধবারও রয়েছে। ফলে রামকৃষ্ণ মিশনের জগদ্ধাত্রী পুজো গত মঙ্গলবারই অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার কিন্তু কলকাতার বারোয়ারিগুলো থেকে শুরু করে পারিবারিক জগদ্ধাত্রী পুজোর ধুমধাম তুঙ্গে। সকাল থেকেই শুরু হয় পুজো। সকালেই প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে নজর কাড়ে ভক্তদের ভিড়। অনেক মহিলাকে পুজোর থালা হাতে প্যান্ডেলে প্রবেশ করতে দেখা যায়।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

দুর্গাপুজো দিয়ে যে বারোয়ারি পুজো কলকাতায় শুরু হয় তার মোটামুটি ইতি হয় এই জগদ্ধাত্রী পুজো দিয়ে। এরপর একটা বড় সময়ের ব্যবধানে হবে সরস্বতী পুজো। দুর্গাপুজো, লক্ষ্মী পুজো, কালীপুজো ও জগদ্ধাত্রী পুজো পরপর অনুষ্ঠিত হয়। পরপর পুজো কাটিয়ে জগদ্ধাত্রী পুজো দিয়ে শেষ হবে পুজোর উন্মাদনা। তবে তার আগে এদিন জগদ্ধাত্রী পুজোকে সামনে রেখে শহরে ফের একটা পুজো পুজো ভাব। প্যান্ডেলগুলো থেকে ভেসে আসছে মন্ত্রোচ্চারণ, বাজছে ঢাক, কাঁসর, ঘণ্টা। বাজছে মাইক। সব মিলিয়ে বাঙালির কাছে পুজোর উৎসব একদম তুঙ্গে উঠেছে এদিন। যদিও সকালের দিকে অনেকের অফিস রয়েছে। কর্ম ব্যস্ততা রয়েছে। তবে সন্ধের পর এদিনটা জগদ্ধাত্রী পুজোর আনন্দ উৎসব।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *