Sports

চিন্নাস্বামীতে গোপালের প্রবল ঘূর্ণিঝড়

বৃষ্টির জন্য আইপিএলে এবার এই প্রথম ম্যাচ পরিত্যক্ত হল। তবে অফিসিয়ালি পরিত্যক্ত ঘোষণার আগে পর্যন্ত যেটুকু খেলা হল তাতে টানটান ব্যাপারটা চুটিয়ে উপভোগ করলেন দর্শকরা। মঙ্গলবার বেঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে নেমেছিল বেঙ্গালুরু। কিন্তু ম্যাচ রাত ৮টার নির্ধারিত সময়ে শুরু হতে পারেনি।

প্রবল বৃষ্টি তখন ধুয়ে দিচ্ছে বেঙ্গালুরু শহরটাকে। ফলে বৃষ্টি ভেজা হয়ে দর্শকদের অপেক্ষা করা ছাড়া গতি ছিলনা। ম্যাচটির গুরুত্বও ছিল। এই ম্যাচ জিতলে বেঙ্গালুরুর যেমন একটা ক্ষীণ আশা প্লে অফে যাওয়ার থেকে যেত। তেমনই জিতলে থাকত রাজস্থানেরও। এই অবস্থায় প্রবল বৃষ্টি ২ দলকেই চাপে ফেলে দেয়। সকলেই অপেক্ষা করছিলেন কখন বৃষ্টি ধরবে। কখন শুরু হবে ম্যাচ।

বৃষ্টি কিন্তু থামতে সময় নেয়। ফলে ম্যাচ শুরু হয় রাত সাড়ে ১১টায়। এত দেরি হওয়ায় ম্যাচ ২০ ওভার থেকে কমিয়ে করে দেওয়া হয় ৫ ওভারের। ২ দলই ৫ ওভার করে খেলবে। তাতে যা ফলাফল হওয়ার হবে। সেই ম্যাচে টস জেতে রাজস্থান। টস জিতে প্রথমে বেঙ্গালুরুকে ব্যাট করতে পাঠায় তারা। প্রথম ওভার থেকেই চালিয়ে খেলাটা ছিল স্বাভাবিক। হয়ও সেটা। বিরাট প্রথম ওভারেই ব্যাপক প্রহার শুরু করেন। কিন্তু দ্বিতীয় ওভারের চতুর্থ বলে রাজস্থানের স্পিনার শ্রেয়স গোপাল বিরাটকে ফেরান। মাত্র ৭ বল খেলে ২৫ রান করে যান বিরাট। যারমধ্যে ৩টি ৬ ও ১টি চার রয়েছে।

শ্রেয়স বিরাটকে ফেরানোর পরের বলেই ফেরান ডেভিলিয়ার্সকে। তিনি ৪ বল খেলে ১০ রান করে আউট হন। পরপর ২ বলে বিরাট ও ডেভিলিয়ার্সকে ফেরানোর পর শ্রেয়সের সামনে ছিল হ্যাটট্রিকের সুযোগ। আর তা কাজে লাগান তিনি। করে ফেলেন রেকর্ড। ওভারের শেষ বলে ফেরান স্টোইনিসকে। ২ ওভারে ৩৫ রান করা বেঙ্গালুরু শ্রেয়সের ঘূর্ণির মুখে চাপে পড়ে যায়। অবশেষে ৫ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৬২ রান করে তারা।


জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩ ওভার ২ বলে ৪২ রানে পৌঁছে যায় রাজস্থান। হারায় ১৩ বলে ২৮ রান করা সঞ্জু স্যামসনের উইকেট। আর ঠিক তখনই ফের প্রবল বৃষ্টি নামে। ঝেঁপে বৃষ্টিতে ধুয়ে যেতে থাকে মাঠ। আম্পায়াররা এরপর আর খেলা চালানোর রাস্তায় হাঁটেননি। ৫ ওভারের ম্যাচ করেও তা পরিত্যক্ত ঘোষণা করতে বাধ্য হন তাঁরা। ২ দল ১ পয়েন্ট করে পায়। ফলে বেঙ্গালুরু কোনও অঙ্কেই আর প্লে অফে যেতে পারছেনা।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button