Business

কমল না টিকার ওপর জিএসটি, তামাশা করছে কেন্দ্র বলল তৃণমূল

জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকের পর এদিন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানিয়ে দিলেন করোনা প্রতিষেধক টিকার ওপর জিএসটি অপরিবর্তিত থাকছে। করোনা চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু জিনিসে জিএসটি হ্রাস।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এখনও স্তিমিত হয়নি। এরমধ্যেই শনিবার অনুষ্ঠিত হল জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠক। যে বৈঠকের পর অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন জানিয়ে দিলেন করোনা প্রতিষেধক টিকার ওপর যে ৫ শতাংশ হারে জিএসটি ছিল তাই বহাল থাকছে।

ফলে অনেক মহল থেকে টিকার ওপর থেকে জিএসটি মকুবের দাবি সে অর্থে এদিন গুরুত্ব পেল না। এদিন টিকার ওপর জিএসটি অপরিবর্তিত রাখার কথা বলার পাশাপাশি অবশ্য অর্থমন্ত্রী দাবি করেন এর প্রভাব সেভাবে মানুষের ওপর পড়বে না। কারণ টিকা বিনামূল্যে প্রদান করা হচ্ছে।

তবে টিকার ওপর জিএসটি কমানো না হলেও করোনা সংক্রান্ত চিকিৎসায় যে ওষুধ ও সামগ্রি লাগে তার ওপর জিএসটি বেশ কিছু ক্ষেত্রে হ্রাস করা হয়েছে। সেখানে জিএসটি ১২ বা ১৮ শতাংশ থেকে নামিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

তবে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের ওষুধের ওপর জিএসটি তুলে নেওয়া হয়েছে। অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধের ওপর জিএসটি তুলে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া করোনা চিকিৎসায় কাজে লাগা টোসিলিজুমাব ওষুধের ওপরও জিএসটি তুলে নেওয়া হয়েছে।


রেমডিসিভির ওষুধটির ওপর ১২ শতাংশ থেকে জিএসটি ৫ শতাংশে নামানো হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সের ওপর জিএসটি ১৮ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ করা হয়েছে।

এছাড়া পালস্ অক্সিমিটার, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, চিকিৎসার প্রয়োজনে উত্তাপ মাপক যন্ত্রের ওপর জিএসটি ৫ শতাংশে নামানো হয়েছে।

৫ শতাংশে নেমেছে দেহ সৎকারের চুল্লিতে ব্যবহৃত গ্যাস, বিদ্যুৎ বা অন্য সামগ্রির খরচ। অক্সিজেন কনসেনট্রেটর, মেডিক্যাল গ্রেড অক্সিজেন, ভেন্টিলেটর, বাইপ্যাপ মেশিনের ওপর জিএসটি ১২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

কোভিড সংক্রান্ত সবকিছুর ওপর থেকেই কর মকুবের আবেদন করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিয়েছিলেন। এদিন মন্ত্রী ব্রাত্য বসু সেকথা মনে করিয়ে এদিনের জিএসটি কাউন্সিলের সিদ্ধান্তকে কেন্দ্রের তামাশা বলে কটাক্ষ করেছেন। কার্যত এদিনের জিএসটি কাউন্সিলের সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনাই করেছে তৃণমূল। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button