Sunday , September 22 2019
Toothbrush
প্রতীকী ছবি

পেট থেকে বার হল ২০ বছর আগে খাওয়া টুথব্রাশ

২০ বছর আগে তিনি এইচআইভি আক্রান্ত বলে সন্দেহ হয় চিকিৎসকদের। সেকথা জানার পর আত্মহত্যা করবেন বলে স্থির করেন তিনি। আত্মহত্যা করতে একটা গোটা টুথব্রাশ গিলে নেন। সেই টুথব্রাশ সোজা চলে যায় তাঁর পেটে। কিন্তু আত্মহত্যার চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এরপর টুথব্রাশ তাঁর পেটেই থেকে যায়। আর তিনি তাঁর স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে থাকেন। এভাবে চলছিল ভালই। পেটে যে টুথব্রাশটা রয়েছে তা টেরও পেতেননা চিনের বাসিন্দা লি। তাঁর যখন ৩১ বছর বয়স তখন টুথব্রাশ গিলেছিলেন। তাঁর যখন ৪৬ বছর বয়স তখন শুরু হয় সমস্যা। পেটে ব্যথা হত মাঝেমধ্যে।

পেট ব্যথা প্রথম দিকে তেমন না ভোগালেও ক্রমে তা বাড়তে থাকে। এভাবে কেটে যায় আরও ৫ বছর। অবশেষে আর থাকতে না পেরে তিনি গত জুলাই মাসে হাজির হন চিনের শেনজেন শহরের একটি হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকেরা তাঁর সিটি স্ক্যান করে দেখতে পান একটা কিছু লি-এর পাকস্থলীর ঠিক নিচের অংশে আটকে আছে। কিন্তু বস্তুটি যে কী তা বুঝে উঠতে পারছিলেন না। চিকিৎসকদের সেই বিষয়ে আলোকপাত করেন লি নিজেই। তিনি জানান যেটা আটকে আছে সেটা সম্ভবত টুথব্রাশ। গোটা ঘটনাও চিকিৎসকদের জানান তিনি।

অবশেষে অপারেশন করে বার করে আনা হয় সেই টুথব্রাশকে। ২০ সেন্টিমিটার লম্বা টুথব্রাশ এই বিশ বছরেও এতটুকু নষ্ট হয়নি। তবে লিয়ের মনে আছে যে তিনি যখন ব্রাশটি গেলেন তখন ব্রাশের ব্রিসলগুলো পুরো ছিল। কিন্তু পেট থেকে বার হওয়ার পর দেখা যায় একটাও ব্রিসল নেই। পুরো নেড়া! ব্রিসলগুলো এই ২০ বছরে বেমালুম হজম হয়ে গেছে!

লি টুথব্রাশ গেলার পর কিন্তু তাঁরে বিয়েও হয়। ২ সন্তানের জনক তিনি। সমস্যা কখনই হয়নি। কিন্তু পেটে নিশ্চিন্তে থেকে গেছিল একটি টুথব্রাশ। চিকিৎসকেরা অবশ্য অবাক। কারণ এর আগে অনেক কিছু মানুষের পেট থেকে বার করেছেন তাঁরা। লাইটার, কয়েন, পেরেক। কিন্তু টুথব্রাশ এই প্রথম। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *