National

রাহুল গান্ধীকে আটক করল দিল্লি পুলিশ

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত আধিকারিকদের জন্য এক পদ এক পেনশনের দাবিতে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন ভারতীয় সেনার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী রামকিষাণ গ্রেওয়াল। হরিয়ানার ভিওয়ানি জেলার বাসিন্দা ৭০ বছরের রামকিষাণ মঙ্গলবার দিল্লিতে আসেন এক পদ এক পেনশনের দাবিতে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে। তারপরই তিনি আত্মহত্যা করেন। সুইসাইড নোটে তিনি লিখেছেন, তাঁর মত বহু অবসরপ্রাপ্ত সেনাকর্মীর দাবিকে সামনে রেখেই তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছেন। এই ঘটনার পর বুধবার সকালে তাঁর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া। কিন্তু তাঁকে দেখা তো করতেই দেওয়া হয়নি। বরং আটক করে পুলিশ।

এরপর কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাঁকেও আটক করা হয়। কটাক্ষের সুরে রাহুল জানান, এটাই মোদীর ভারত, যেখানে গণতন্ত্রের কোনও জায়গা নেই, এটাই এঁদের মানসিকতা। পাশাপাশি যতই আটকানো হোক না কেন তিনি গ্রেওয়ালের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেনই বলে জানিয়ে দিয়ে যান রাহুল। আটক করার পর তাঁকে দিল্লির মন্দিরমার্গ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে রাহুল গান্ধীকে আটক করার প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন কংগ্রেস কর্মীরা। অন্যদিকে সেনা কর্মীর আত্মহত্যার ঘটনায় ফের একবার মোদী সরকারকে নিশানা করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। রামকিষাণ গ্রেওয়ালের আত্মহত্যার ঘটনায় তিনি গভীরভাবে দুঃখিত বলে জানিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর। এই বিষয়ে বিস্তারিত রিপোর্ট তলব করেছেন তিনি।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button