Lifestyle

বাড়িতে খবরের কাগজ বা চালের বস্তা এলে পোশাক কিনতে হবেনা

বাড়িতে কি নিয়মিত খবরের কাগজ আসে অথবা চালের বস্তা দিয়ে যায় মুদিখানা থেকে। এগুলো এলে হয়তো পোশাক কেনার দরকার নাও পড়তে পারে।

এও এক অনন্য উপায়। অবশ্যই স্বল্প খরচে অভিনবত্বও। লাগবে শুধু একটি সেলাই মেশিন। আর উদ্ভাবনী ভাবনা। তাহলে বিয়ের পোশাকও নাকি তৈরি হয়ে যেতে পারে।

কি দিয়ে তৈরি হবে পোশাক? তৈরি করতে লাগবে খবরের কাগজ, লাগবে চালের বস্তা, লাগবে জিনিসপত্রের প্যাকেট এবং এমনই বেশ কিছু ফেলে দেওয়া জিনিসপত্র। যা সাধারণত মানুষ জঞ্জাল হিসাবে ফেলে দিয়ে বাড়িঘর পরিস্কার রাখতে পছন্দ করেন।

কীভাবে এমনটা সম্ভব? এমনটা সম্ভব করে দেখিয়েছেন ফিলিপিন্সের ডিজাইনার লেনোরা বুয়েনভিয়াজে। এ তাঁরই আবিষ্কার। তিনি এসব ফেলে দেওয়া জিনিস দিয়ে অক্লেশে তৈরি করে দিতে পারেন নজরকাড়া পোশাক।

এমনকি এসব ফেলে দেওয়া জিনিস দিয়ে তিনি বিয়ের গাউনও তৈরি করে ফেলেছেন। যা দেখলে বোঝার উপায় নেই তা কি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। লেনোরার এই সব পোশাক সাশ্রয়ী এবং নতুনত্বে ভরা।

কেউ যদি এটা ভাবেন যে এসব জঞ্জাল দিয়ে তৈরি পোশাক পরতে পারবেননা, তাহলে আলাদা কথা। কিন্তু চাইলে এই দিয়ে সুন্দর পোশাকও তৈরি হবে। তা লোকসমাজে পরতেও পারা যাবে।

লেনোরা সেলাই মেশিনে এসব বস্তা, প্যাকেটের ভোল বদলে ফেলেন। তাঁর মতে, সাদা প্যাকেট বা বস্তা পেলে তা দিয়ে বিয়ের গাউন দারুণ সুন্দরভাবে বানিয়ে ফেলা যায়। আবার ১৮ বছর পূর্ণ হওয়া এক তরুণীর জন্মদিনের পার্টির ড্রেসও তৈরি হয় এভাবে। যা বিক্রিও হচ্ছে দেদার।

পার্টির জন্য তৈরি পোশাকের দাম পড়ে ৩০ ডলার থেকে ৫০ ডলার। যা দেখে বোঝার উপায় নেই তা কী দিয়ে তৈরি হয়েছে। এমনকি ফিলিপিন্সের ফ্যাশন প্যারেড বা সুন্দরী প্রতিযোগিতাতেও লেনোরার তৈরি জঞ্জালের পোশাকের দারুণ কদর এখন।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.