Lifestyle

রাতের আকাশকে হাতিয়ার করে পর্যটনকে চাঙ্গা করার চেষ্টা

করোনার জেরে ঝিমিয়ে পড়া পর্যটন শিল্পকে টেনে তুলতে চিন্তা ভাবনা চালাচ্ছে প্রত্যেক রাজ্য। এবার রাতের আকাশকে কাজে লাগিয়ে এক অভিনব উদ্যোগ নিল মরুরাজ্যের সরকার।

জয়পুর : করোনা পরিস্থিতি দেশের সর্বস্তরে থাবা বসিয়েছে। অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণ বিপুল। অনেক শিল্পই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বড় ক্ষতি হয়েছে পর্যটন শিল্পে। প্রায় একটা বছর ধরে পর্যটন শিল্পে ধস নেমেছে। নতুন বছর শুরুর পর থেকে কিছুটা স্বাভাবিক হচ্ছে পরিস্থিতি।

ভারতের যে সমস্ত রাজ্যগুলির অন্যতম ভরসা পর্যটন, তার মধ্যে অন্যতম হল রাজস্থান। পর্যটনের ক্ষতি কিছুটা পূরণ করতে ও পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে রাজস্থানের শিল্প ও সংস্কৃতি দফতর জয়পুরে শুরু করতে চলেছে একটি নতুন পর্যটন আকর্ষণ। আকাশ দেখার সুযোগ করে দিচ্ছে রাজস্থান সরকার। যাকে বলা হচ্ছে রাতের আকাশে পর্যটন।

পর্যটকদের দিক থেকে বিনা খরচে নাইট স্কাই ট্যুরিজম-এর ব্যবস্থা করেছে তারা। মহাকাশ মানুষকে চিরকালই আকর্ষিত করে। তার অনন্ত বিশালত্ব বারবার মানুষকে চমকিত করে। তাই মানুষ বিভিন্ন মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে চায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে। কিন্তু উপযুক্ত সরঞ্জামের অভাবে অনেক সময়ই সেই কৌতূহল মেটানো সম্ভব হয়না।

নিজের চোখে মহাকাশের বিরল ঘটনা দেখা হয়না। সন্তুষ্ট হতে হয় ক্যামেরায় তোলা ছবি দেখে। সেসব দূরে সরিয়ে এবার মানুষের সেই মহাজাগতিক বিস্ময় চাক্ষুষ করার সুযোগ করে দিল রাজস্থান সরকার। রাজস্থানের মন্ত্রী বিডি কাল্লা রাজ্যের মুখ্যসচিবের উপস্থিতিতে ঘোষণা করেন এই বিশেষ পর্যটন বন্দোবস্তের কথা।

Space
ফাইল : অ্যান্ড্রোমিডা গ্যালাক্সি

এই পর্যটনের জন্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দফতর সময়ে সময়ে ঘটে যাওয়া নির্দিষ্ট মহাজাগতিক ঘটনাগুলির ওপর নজর রাখবে যাতে বিভিন্ন স্থান থেকে এই সমস্ত ঘটনা ও গ্রহ নক্ষত্রদের পর্যটকরা প্রত্যক্ষ করতে পারেন। শক্তিশালী টেলিস্কোপের সাহায্যে কয়েকদিন আগে রাজ্যের কলা কেন্দ্রে পর্যটকরা চাঁদকে অন্য ভাবে কাছে পান।

আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি শনি, বৃহস্পতি, শুক্র ও বুধকে দেখা যাবে যন্তর মন্তর থেকে। ৫ মার্চ পর্যটকরা দেখবেন বৃহস্পতি ও বুধের সংযোগ অ্যালবার্ট হলে। ১৭ মে-এর দিন আবার দেখা যাবে বুধের অবস্থান অম্বর দুর্গ-য়।

২৬ মে অম্বর দুর্গ থেকে পর্যটকরা দেখতে পাবেন ২০২১-এর সবচেয়ে বড় চাঁদকে। অ্যালবার্ট হলে ৩ জুলাই শুক্রের অবস্থান দেখবেন পর্যটকরা।

মন্ত্রী জানান, এই পর্যটনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রতি যেমন সচেতনতা বাড়াবে তেমনই তা বিজ্ঞানের ছাত্র ও গবেষকদের কাজে উৎসাহদান করবে। সাধারণ মানুষেরও ভাল লাগবে।

তিনি জানান রাজস্থানের শিল্প ও সংস্কৃতি মন্ত্রকের এই বিশেষ ধরনের পর্যটনের ভাবনা মরুদেশে আরও বেশি পর্যটককে আকর্ষিত করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

নাইট স্কাই ট্যুরিজম রাজস্থানের পর্যটন শিল্পের উন্নতি করবে ও তারসাথে সাধারণ মানুষের মধ্যে মহাকাশ ও গ্রহ নক্ষত্রদের প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি করবে। মন্ত্রী আরও জানান অন্যান্য আরও কিছু স্পট তৈরি করা হচ্ছে এই নাইট স্কাই ট্যুরের জন্য, যেখান থেকে মহাজাগতিক দৃশ্য দেখা যাবে।

বিশ্বের কিছু দেশে নাইট স্কাই ট্যুর হয়ে থাকে, তবে এই ধরনের পর্যটন ভারতে প্রথমবারের জন্য সূচনা করল রাজস্থান সরকার। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে এই সুযোগ পাওয়া যাবে। তাই আশা করা হচ্ছে সর্বস্তরের মানুষই এতে অংশগ্রহণ করার উৎসাহ দেখাবেন। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button