World

মহিলার অনুরোধে ২০ টন জঞ্জালের পাহাড়ে ঢুকে পড়লেন সাফাইকর্মীরা

২০ টন জঞ্জাল। যা সাফ করার জন্য মেশিন ব্যবহার হয়। সেই বিপুল জঞ্জালের স্তূপে নামাটাই একটা দুরূহ কাজ। সেটা কিন্তু করলেন কয়েকজন সাফাইকর্মী।

জঞ্জালের পাহাড় বলাই সবচেয়ে ভাল। ২০ টন জঞ্জাল তো আর মুখের কথা নয়। সেখানে দূষণ মাত্রাও অত্যধিক। সেই জঞ্জালের পাহাড়ে কয়েকজন মানুষ নেমে পড়লেন। তারপর সেই জঞ্জাল ঘাঁটতে শুরু করলেন। যার ধারেকাছে কেউ যেতে চাইবেন না, তার মধ্যে নেমে হাতড়ানো সহজ কথা নয়।

কিন্তু তাঁরা তা করতে শুরু করলেন। আর যে জন্য এতকিছু তা সম্পূর্ণ করতে সময় লাগল ২ ঘণ্টার ওপর। মানে ২ ঘণ্টা ধরে ওই জঞ্জাল ঘাঁটলেন তাঁরা। আর এর পুরোটাই হল এক মহিলার অনুরোধে।

এক মহিলা নগর প্রশাসনকে জানান তাঁর বিয়ের আংটিটি জঞ্জালের সঙ্গে হারিয়ে গেছে। তাঁর স্বামী ঠিক কখন জঞ্জাল কোথায় ফেলেছিলেন তাও জানান তিনি। সেইসঙ্গে অনুরোধ করেন জঞ্জালে থাকা তাঁর আংটিটি খুঁজে দিতে।

সেইমত সাফাইকর্মীদের কাছে নির্দেশ পৌঁছয়। তাঁরা নেমে পড়েন কাজে। তারপর ২ ঘণ্টার লড়াইয়ের শেষে অবশেষে সেই আংটি পাওয়া গেল। মহিলা যেন প্রাণ ফিরে পেলেন।

তাঁর বিয়ের আংটি খোয়া যাওয়ায় তিনি যথেষ্ট ভেঙে পড়েছিলেন। জঞ্জালের পাহাড়ের ১২ ফুট নিচ থেকে উদ্ধার হয় আংটিটি। ঘটনাটি ঘটেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ারে।

কীভাবে আংটিটি আঙুল থেকে বেরিয়ে জঞ্জালের মধ্যে ঢুকল তা অজানা। তবে জঞ্জাল ফেলার আগে যদি তা নজরে আসত তাহলে এত কাণ্ড করতে হত না বলে মনে করছেন অনেকে।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button