National

কলেজের প্রিন্সিপালকে তাঁর ঘরেই ধরে পেটালেন অধ্যাপক

এক সরকারি কলেজের প্রিন্সিপালকে যে এভাবে তাঁরই কলেজের এক অধ্যাপক মারধর করতে পারেন তা ছাত্ররাও ভাবতে পারেননা। কিন্তু ঠিক এই ঘটনাই ঘটল।

তর্কটা শুরু হয়েছিল প্রিন্সিপালের ঘরেই। তাঁরই কলেজের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসরের সঙ্গে প্রিন্সিপালের তর্ক দ্রুত চরমে পৌঁছে যায়। তারপরই আচমকা টেবিলের উল্টোদিক থেকে প্রিন্সিপালকে লক্ষ্য করে ঘুষি চালান অধ্যাপক। প্রিন্সিপালের হাতে গিয়ে লাগে ঘুষিটা।

এরপরই দেখা যায় অধ্যাপক আরও এগিয়ে আসেন। টেবিলে রাখা জিনিস ছুঁড়ে দিতে থাকেন প্রিন্সিপালের দিকে। এগিয়ে গিয়ে এরপর প্রিন্সিপালকে চেপে ধরে কোণঠাসা করে দেন। ধাক্কা, হাত চালানো চলতে থাকে।

প্রিন্সিপালের ঘর থেকে চেঁচামেচির শব্দ শুনে কলেজের কর্মচারিরা হাজির হন। তাঁরাই প্রিন্সিপালকে ওই অধ্যাপকের হাত থেকে রক্ষা করেন।

ব্রহ্মদীপ আলুনে নামে ওই অধ্যাপককে টেনে সরিয়ে নিয়ে যান তাঁরা। এরপর প্রিন্সিপাল তাঁকে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে বললেও তিনি চেয়ারে বসে থাকেন।

পুরো ঘটনার ছবি সিসিটিভিতে ধরা পড়েছে। প্রিন্সিপালকে মারধর করার অভিযোগে ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

এদিকে ওই অধ্যাপকের দাবি, তাঁকে ঘরে ডেকে প্রিন্সিপাল খারাপ ভাষায় আক্রমণ করেন। এমনটা নাকি তিনি অন্যদের সঙ্গেও করে থাকেন।

অন্যদিকে প্রিন্সিপালের দাবি, আলোচনার জন্য ডেকেছিলেন ওই অধ্যাপককে। কিন্তু তিনি বিনা প্ররোচনায় মারধর শুরু করেন। পুরো ঘটনা এখন পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়িনীর নাগুলাল মালব্য গভর্নমেন্ট কলেজে।

এসব দেখার পর সকলের একটাই প্রশ্ন সমাজের এই পর্যায়ের শিক্ষিত ২ মানুষের এই হাতাহাতি দেখে ছাত্ররা কি শিখবে? এ ঘটনা যে ভাল কোনও দৃষ্টান্ত তৈরি করল না তা মেনে নিচ্ছেন সকলেই।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.