National

পুলিশ মাকে মেরেছে, সহ্য করতে না পেরে নিজেকে শেষ করলেন ছেলে

মাকে অপমান করছে পুলিশ, মারধর করছে। এটা সহ্য করতে পারলেন না ২২ বছরের ছেলে। নিজেকে শেষ করে দিলেন তিনি। পদক্ষেপ করল পুলিশ।

বাড়ির কাছেই একটি স্কুলে স্বাস্থ্য দফতরের তরফে একটি অস্থায়ী শিবির করে সেখান থেকে করোনা প্রতিষেধক টিকাকরণ চলছিল। বহু মানুষ দীর্ঘ সময় ধরে লাইন দিয়েছিলেন সেখানে।

টিকাগ্রহণের জন্য সেই ভিড়ে মাকে নিয়ে হাজির হন স্থানীয় এক আরএসএস নেতার ছেলে অক্ষয়। অভিযোগ মাকে টিকাকরণ কেন্দ্রে এনেই অক্ষয় লাইন টপকে এগোনোর চেষ্টা করেন।

পুলিশ তাঁর পথ আটকালে তিনি জানান তাঁর মায়ের বয়স হয়েছে। তাই লাইন দিয়ে তিনি টিকা নিতে পারবেননা। এতে পুলিশকর্মীর সঙ্গে তাঁর বচসা শুরু হয়।

অভিযোগ, বচসা চরমে উঠলে অক্ষয়কে সপাটে একটি চড় কষান কর্তব্যরত পুলিশকর্মী। সেখানেই বিষয়টি শেষ হয়নি। অক্ষয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়। পুলিশকর্মীরা অক্ষয়ের বাড়িতে হাজির হন।


অক্ষয়ের পরিবারের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে পুলিশকর্মীরা তাঁদের বাড়িতে প্রবেশ করে ভাঙচুর শুরু করেন। জিনিসপত্র ভাঙতে থাকলে বাড়ির মহিলারা এগিয়ে আসেন।

অভিযোগ, সেসময় পুলিশকর্মীরা অক্ষয়ের মা ও তাঁর বৌদির সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। তাঁদের মারধর করা হয়। গ্রেফতার করে পুলিশ স্টেশনেও নিয়ে যাওয়া হয়।

এই ঘটনায় মায়ের এই অপমান সহ্য করতে না পেরে অক্ষয় নিজেকে শেষ করে দেন বলে পরিবারের তরফে দাবি করা হয়েছে। অক্ষয়ের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনার পর ১০ পুলিশকর্মীকে পুলিশ লাইনে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বাগপতে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button