National

শারীরিক মিলনে স্বামীর অনীহা কেন, ফোন ঘেঁটে রহস্যভেদ করলেন স্ত্রী

স্বামীর কাছে যাওয়ার চেষ্টা করলেই তিনি কোনও না কোনও কারণ দেখিয়ে দূরে সরে যেতেন। কেন এমন করেন? স্বামীর ফোন ঘাঁটতেই সামনে এল কারণ। তাজ্জব স্ত্রী।

ব্যাঙ্কে কাজ করেন ছেলে। এই দেখে মেয়ের সঙ্গে বিয়ে দিয়েছিলেন পরিবারের বড়রা। এটা জেনেই যে পাত্রের এর আগে একবার বিয়ে হয়েছিল। কিন্তু তা বেশিদিন টেকেনি।

মেয়েটি প্রযুক্তি ক্ষেত্রে কর্মরত। পাত্রের দ্বিতীয় বিয়ে জেনেও ২৮ বছরের মেয়েটি পরিবারের স্থির করা পাত্রের গলায় মালা দেন বিনাবাক্যে।

এই পর্যন্ত সব ঠিক ছিল। গোল বাঁধল বিয়ের পর। মেয়েটি লক্ষ্য করতে শুরু করলেন তাঁর স্বামীর তাঁর সঙ্গে শারীরিক মিলনে কোনও আগ্রহ নেই।

তিনি নিজে বারবার কাছে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্বামী নানা অজুহাতে তাঁকে দূরে সরিয়ে দিতে থাকেন। কখনও বলেন আগের স্ত্রীর ছেড়ে যাওয়ার ধাক্কা তিনি সামলে উঠতে পারেননি।


কখনও বলতেন যথেষ্ট পণ কেন আনতে পারেননি স্ত্রী। স্বামী যে যুক্তি খুঁজে বার করছেন তা মেয়েটির কাছে পরিস্কার হচ্ছিল।

প্রথম লকডাউনে ২ জন এক বাড়িতে দিনের পর দিন কাটালেও মেয়েটি লক্ষ্য করেন এক দিনের জন্যও স্বামী তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করতে ইচ্ছা প্রকাশ করেননি।

দ্বিতীয় লকডাউনেও ফের ২ জন বাড়িতে দিনরাত কাটালেও কাছাকাছি হননি কেউই। শারীরিক মিলনে এতটা অনীহা কেন?

এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে স্ত্রী লক্ষ্য করেন যে তাঁর স্বামী ফোনে দীর্ঘ সময় চ্যাট করেন। কার সঙ্গে এত চ্যাট? উত্তর খুঁজতে গিয়ে স্বামীর ফোনটি একদিন ঘাঁটতে শুরু করেন স্ত্রী। আর তা করতে গিয়ে তাঁর সামনে সব পরিস্কার হয়ে যায়।

২৮ বছরের ওই তরুণী জানতে পারেন তাঁর স্বামীর সমকামী ডেটিং অ্যাপে প্রোফাইল রয়েছে। তিনি একাধিক জনের সঙ্গে চ্যাটেও রয়েছেন।

এটা জানার পর বিবাহবিচ্ছেদ চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই তরুণী। সেইসঙ্গে মহিলা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করেছেন।

তরুণীর স্বামী স্বীকার করেছেন যে তাঁর সমকামী অ্যাপে প্রোফাইল রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বেঙ্গালুরুতে। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button