National

বৃহন্নলাকে বিয়ে করেছে ছেলে, অজ্ঞান হয়ে গেলেন মা

এক বৃহন্নলাকে বিয়ে করেছেন বাড়ির ছেলে। একথা জানার পর অনেক চেষ্টা করে পরিবার তাঁদের আলাদা করার চেষ্টা করে। কিন্তু সেকথা জেনে তুলকালাম করেন ওই বৃহন্নলা।

আলাপটা হয়েছিল একটা নাচের অনুষ্ঠানে। তাও বছর ঘুরে গেছে। সেখানেই নন্দিনী নামে এক বৃহন্নলার সঙ্গে পরিচয় হয় তরুণ গোলু-র।

গোলু নন্দিনীর প্রেমে হাবুডুবু খেতে থাকেন। একইভাবে গোলুকে ছেড়ে থাকার কথা ভাবতেই পারছিলেন না নন্দিনী। ১ বছর তাঁদের প্রেমপর্ব চলার পর গোলু নন্দিনীকে বিয়ে করেন। কিন্তু বাড়িতে কিছু না জানিয়েই। কারণ তাঁর জানা ছিল এই সম্পর্ক তাঁর বাড়ি মেনে নেবে না।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

এক বৃহন্নলাকে বিয়ে করেছেন বাড়িরে ছেলে। তারপর তাঁকে নিয়ে একটি ঘর ভাড়া করে থাকছেন। একথা জানার পর বাড়ির লোকজন স্থির করেন এই সম্পর্ক থেকে গোলুকে বার করে আনতে হবে।

গোলুর ভাড়া বাড়িতে হাজির হন তাঁরা। তারপর গোলু কুমারকে অনেক বুঝিয়ে তাঁর বাড়ি বিহারের রোহতাস জেলার সাসারামে ফিরিয়ে আনেন তাঁরা।

বাড়িতে আসার পর গোলু কুমার বুঝতে পারেন তাঁকে নন্দিনীর থেকে আলাদা করাই পরিবারের উদ্দেশ্য। তাঁরা গোলুর অন্যত্র বিয়ের বন্দোবস্ত করছেন। এজন্য পাত্রীও খোঁজা হয়েছে।

এটা জানার পরই গোলু বিষয়টি নন্দিনীকে জানান। নন্দিনী একথা জানতে পেরে হাজির হন গোলুর বাড়িতে। বাড়িতে ঢুকেই তুলকালাম শুরু করেন তিনি। নন্দিনীর সেই তাণ্ডবে গোলুর মা বেরিয়ে আসেন। তারপর ছেলের স্ত্রী এক বৃহন্নলা দেখে সেখানেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান।

এদিকে বাড়িতে গোলু ও নন্দিনী জানিয়ে দেন তাঁরা একসঙ্গেই জীবন কাটাতে চান। কেউই কাউকে ছাড়তে রাজি নন। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article
Back to top button