National

নেপাল সীমান্তে উত্তেজনা

চিন সীমান্তে উত্তেজনা তো ছিলই। এবার ভারত-নেপাল সীমান্তে উত্তেজনার সৃষ্টি হল।

পিলিভিট (উত্তরপ্রদেশ) : গত সোমবারের কথা। নেপাল সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করছিল একটি ট্রাক। সেটিকে দাঁড় করান সশস্ত্র সীমা বল বা এসএসবি-র জওয়ানরা।

ভারতে প্রবেশ করার মুখে ওই ট্রাক তল্লাশি করতে গিয়ে প্রচুর প্রসাধনী উদ্ধার হয় সেখান থেকে। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় সাড়ে ২৪ লক্ষ টাকা। বেআইনিভাবে ওই ট্রাক নিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করার অভিযোগে স্থানীয় নাওজলা গ্রামের বাসিন্দা বিক্রম চক্রবর্তী নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।


আকর্ষণীয় খবর পড়তে ডাউনলোড করুন নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

এই ঘটনার পরদিন মঙ্গলবারই আচমকা উত্তরপ্রদেশের পিলিভিট জেলার নেপাল সীমান্তে সুন্দরনগর গ্রামের কাছে জমা হয় একদল নেপালি নাগরিক।

সীমান্তবর্তী এলাকার বাসিন্দা ওই নেপালি মানুষজন আচমকাই এসএসবি-র জওয়ানদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়। তাদের অভিযোগ সীমান্তে ভারত ও নেপালের মাঝখানে নো ম্যানস ল্যান্ডে জল জমে আছে। আর তার জন্য দায়ী ভারত।

বান্দরভোজ গ্রামের কাছে একটি সেচের জন্য যাওয়া পাইপ লাইনে ফাটল থেকে ওখানে জলটা জমে। কিন্তু তা জমে ছিল না নেপাল, না ভারতের জমিতে। নো ম্যানস ল্যান্ডে। যা সীমান্তে থেকে থাকে।

সেখানে জল জমার জন্য নেপালি ওই বাসিন্দারা অভিযোগ জানিয়েই ক্ষান্ত হয়নি। তারা এসএসবি-র জওয়ানদের ওপরও চড়াও হয়। পরিস্থিতি এতটাই জটিল আকার নেয় যে এসএসবি-র তরফে পুলিশ ডাকা হয়।

পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করে। পরিস্থিতি তাতেও শান্ত হতে সময় নেয়। এরমধ্যেই এসএসবি-র জওয়ানদের ২টি মোবাইল ছিনতাই করে নেয় ওই নেপালিরা বলে অভিযোগ। কিন্তু কেন এমন কাণ্ড?

এসএসবি মনে করছে এর পিছনে কাজ করছে চোরাচালান। নেপাল থেকে লুকিয়ে ভারতে বাইক বা অন্য গাড়িতে করে চোরাচালান হয়। কিন্তু জল জমে থাকায় ওখান দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে কাদা, মাটি, জলে হড়কে যাচ্ছে বাহন। ফলে চোরাচালানে সমস্যা হচ্ছে। সেই কারণেই এত রাগ নেপালি বাসিন্দাদের।

প্রসাধনীর ট্রাক পাকড়াও করে চোরাচালান রুখে দেওয়াও একটা কারণ হতে পারে বলে মনে করছে এসএসবি। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *