National

ভূমি পুজোয় আমন্ত্রিতরা পাবেন রুপোর কয়েন, রঘুপতি লাড্ডু

অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় যাঁরা আমন্ত্রিত তাঁদের জন্য থাকছে অমূল্য উপহার, বিশেষ লাড্ডু।

অযোধ্যা : অযোধ্যায় গত সোমবার থেকেই শুরু হয়ে গেছে ভূমি পুজোর ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান। বুধবার ভূমি পুজো। তারপর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এই অনুষ্ঠানের জন্য তৈরি হয়েছে মঞ্চ। মূল মঞ্চে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী সহ ৫ জন। এছাড়া ভূমি পুজোয় সাকুল্যে ১৭৫ জন আমন্ত্রণপত্র পেয়েছেন। যার মধ্যে আবার ১৩৫ জনই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সাধু। নিমন্ত্রিত যাঁরা রয়েছেন তাঁদের মধ্যে যাঁরা অন্য রাজ্য থেকে অযোধ্যায় আসছেন তাঁদের মঙ্গলবার রাতের মধ্যেই অযোধ্যায় ঢুকে পড়তে বলা হয়েছিল। কারণ সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে মঙ্গলবার রাতেই বন্ধ করে দেওয়া হয় জেলার সীমানা। তারপর আর কেউ অযোধ্যায় প্রবেশ করতে পারেননি।

যাঁদের ভূমি পুজোয় নিমন্ত্রণ করা হয়েছে তাঁদের আমন্ত্রণপত্রে থাকছে একটি কোড। সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই সেই কোডটি দেওয়া হয়েছে। ভূমি পুজোয় নিমন্ত্রিত অতিথিদের পুজো শেষে একটি করে রূপোর কয়েন দেওয়া হবে। যার একদিকে খচিত থাকবে রাম, সীতা, লক্ষ্মণ ও হনুমানের ছবি। যেখানে হনুমানকে বসে রামকে প্রণাম করতে দেখা যাবে। কয়েনটির অন্যদিকে থাকবে রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের চিহ্ন। বিশেষ এই কয়েনটি কেবলমাত্র নিমন্ত্রিতদের জন্যই বানানো হয়েছে।

নিমন্ত্রিতদের জন্য থাকছে বিশেষ লাড্ডুর বাক্সও। রঘুপতি লাড্ডু নামে এই বিশেষ ধরনের লাড্ডু এক বাক্স করে তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। সেইসঙ্গে তাঁদের দেওয়া হবে রাম দরবার-এর ছবি। রাম দরবার হল রাম, সীতা, লক্ষ্মণ ও হনুমানের একসঙ্গে ছবি। এদিকে যে রঘুপতি লাড্ডু –র বাক্স নিমন্ত্রিতদের হাতে তুলে দেওয়া হবে সেই রঘুপতি লাড্ডু থাকছে সকলের জন্যই। ভূমি পুজো উপলক্ষে অযোধ্যাবাসীর হাতেও এই রঘুপতি লাড্ডু দেওয়া হবে। লাড্ডু দেওয়া হবে নিমন্ত্রিত বিভিন্ন মানুষের হাতেও। সকলের জন্য এই রঘুপতি লাড্ডু তৈরি হয়েছে যুদ্ধকালীন তৎপরতায়।

১ লক্ষ ২৫ হাজার রঘুপতি লাড্ডু তৈরি করা হয়েছে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষে। এই রঘুপতি লাড্ডু তৈরি করতে যে কেশর ব্যবহার করা হয়েছে তা এসেছে কাশ্মীর থেকে, মশলা এসেছে কেরালা থেকে আর বেসন এসেছে অস্ট্রেলিয়ার একটি বিশেষ ফার্ম থেকে। ঘি হিসাবে ব্যবহার করা হয়েছে খাঁটি গরুর দুধের ঘি। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button