National

লকডাউনের মধ্যেই বাড়ি ফিরতে চেয়ে মুম্বইতে ৩ হাজার মানুষের ভিড়

গোটা দেশটা ঘরবন্দি। সোশ্যাল ডিসটান্সের কথা বারবার বলা হচ্ছে। গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে সরকার যথাসাধ্য চেষ্টা করছে। সেখানে এভাবে জমায়েত!

ভিন রাজ্য থেকে এসেছিলেন কাজ করতে। তারপর লকডাউনে আটকে পড়েছেন মুম্বইতে। এমন প্রায় ৩ হাজার মানুষ মঙ্গলবার লকডাউনের সব নিয়ম ভেঙে জড়ো হলেন বান্দ্রা রেলস্টেশনের সামনে। তাঁদের দাবি, খাবার নেই। কষ্ট চরমে পৌঁছেছে। তাই তাঁদের অবিলম্বে বাড়িতে ফেরানোর বন্দোবস্ত করতে হবে প্রশাসনকে।

যেখানে গোটা দেশটা ঘরবন্দি। সোশ্যাল ডিসটান্সের কথা বারবার বলা হচ্ছে। গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে সরকার যথাসাধ্য চেষ্টা করছে। সেখানে এভাবে জমায়েত! তাও করোনা যেখানে দ্রুত ছড়াচ্ছে সেই মুম্বইতে!

পুলিশ অবশ্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়। ভিড় হঠাতে মৃদু লাঠিচার্জও করে। কিন্তু এখানে জমা হওয়া ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের ক্ষোভ তাতে বরং বেড়েই গেছে। সন্ধে ৬টায় অবশ্য পুলিশের তরফে জানানো হয় গোটা এলাকা ফাঁকা করা হয়েছে। সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে পুরো এলাকা স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। কিন্তু কীভাবে এমন ভিড় জমা হল? যেখানে মুম্বই শহর জুড়ে কড়াকড়ি রয়েছে। বাড়ি থেকে বার হলে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়তে হচ্ছে। সেখানে এত মানুষ এক জায়গায় হলেন কীভাবে?

সংবাদ সংস্থা আইএএনএস জানাচ্ছে, কীভাবে এমন জমায়েত এত কড়াকড়ির মধ্যেও সম্ভব হল তা অজানা। তবে একটা ভুয়ো খবর ছড়িয়েছিল যে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে খাবারের প্যাকেট দেওয়া হচ্ছে। আরও একটি ভুয়ো খবর রটে যে বান্দ্রা থেকে নাকি দূরপাল্লার ট্রেন মঙ্গলবার রাতে ছাড়া হবে।


প্রাথমিকভাবে পুলিশও মনে করছে যে এই রটনার কারণেই এত মানুষ দ্রুত এক জায়গায় জড়ো হয়ে যান। লকডাউনের মধ্যেই দিল্লির আনন্দ বিহারে বাড়ি ফেরার তাড়ায় বাসস্ট্যান্ডে ভিন রাজ্যের শ্রমিকদের ঢল নেমেছিল। প্রায় তেমনই ঘটনা ঘটল মুম্বইতেও। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button