National

দেশ ডুব দিল অন্ধকারে, জ্বলে উঠল বাতি, প্রদীপ, মোবাইল, পুড়ল বাজি

দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। এরমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জাতির উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জানান দেশবাসী লকডাউন মেনে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছেন। গোটা দেশ হাতে হাত মিলিয়ে লড়াইয়ে নেমেছে। এজন্য সকলকে অভিনন্দনও জানান তিনি।

সেইসঙ্গে জানান দেশবাসী যে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে একত্র, এককাট্টা সেই বার্তাকে তুলে ধরতে রবিবার ৫ এপ্রিল রাত ৯টায় সকলে ৯ মিনিটের জন্য বাড়ির সব আলো নিভিয়ে বারান্দা হোক বা ছাদে বাতি, প্রদীপ জ্বালাবেন। কেউ চাইলে মোবাইলের টর্চও জ্বালাতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রীর সেই ডাকে সাড়া দিল গোটা দেশ। ঘড়ির কাঁটা রাত ৯টা ছুঁতেই নিভল বাড়ির আলো। জ্বলে উঠল মোমবাতি, প্রদীপ, টর্চ। গোটা দেশ এদিন রাত ৯টায় এক অভূতপূর্ব দৃশ্যের সাক্ষী হল।

কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, কচ্ছের রান থেকে অরুণাচলের পাহাড়, জঙ্গল ঘেরা জনবসতি। সর্বত্র রাত ৯টা বাজতেই সবাই বাড়ির আলো নিভিয়ে দিলেন। তারপর জ্বলে উঠল মোমবাতি, প্রদীপের শিখা। ৯ মিনিট ধরে চলল এই কাজ।


প্রধানমন্ত্রীর এই ডাক এদিন বিপুল সাড়া পেল। গোটা দেশ কোথাও গিয়ে বুঝিয়ে দিল তারা সবাই হাতে হাত মিলিয়ে লড়াই করছে করোনার বিরুদ্ধে।

রাত ৯টার পর সারা দেশের সঙ্গে শহর কলকাতাও অন্ধকারে ডুব দেয়। বাড়িতে বাড়িতে আলো নিভে যায়। জ্বলে ওঠে প্রদীপের আলো। কেউ জ্বালান মোমবাতি। টর্চ বা মোবাইলের টর্চ তো ছিলই। সেইসঙ্গে পুড়েছে প্রচুর বাজি।

এই আতসবাজির প্রসঙ্গটি প্রধানমন্ত্রীর আবেদনে ছিলনা। কিন্তু মানুষ এই করোনা উদ্বেগের মধ্যেও চুটিয়ে বাজি পুড়িয়েছেন। ফেটেছে পটকা।

সব মিলিয়ে রাত ৯টা থেকে ৯টা ৯ পর্যন্ত তো বটেই। তার পরেও কলকাতা সহ গোটা দেশ প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে ঘরের আলো নিভিয়ে দিল এক সঙ্গে পাশে থাকার বার্তা।

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button