National

গান্ধীজির দেখানো পথই লক্ষ্য, যুব সমাজকে পাশে চাইছে ‘ন্যাফ’

কোনও রাজনৈতিক দলের ছত্রছায়ায় না থেকেও দেশের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নেওয়ার ইচ্ছা অনেকেরই থাকে। এমন ইচ্ছা যুব সমাজের মধ্যেই বেশি। নতুন প্রজন্মের এখন অনেকেই চাইছেন কোনও রাজনৈতিক দলের সদস্য না হয়ে দেশের উন্নতিতে কাজ করতে। কিন্তু তার জন্য রাজনৈতিক না হলেও একটি মঞ্চ দরকার। সেই মঞ্চটি এবার হাত বাড়ালেই মিলছে। নাম ইন্ডিয়ান পলিটিকাল অ্যাকশন কমিটি বা আইপিএসি। এই আইপ্যাকের উদ্যোগে যুব সমাজকে পাশে চেয়ে মাত্র ১ মাস হল দেশ জুড়ে কাজ শুরু হয়েছে ‘ন্যাশনাল অ্যাজেন্ডা ফোরাম’ বা ‘ন্যাফ’। আর এই সামান্য সময়ের মধ্যেই তারা দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্ট ও খ্যাতনামা ব্যক্তিদের সমর্থন পেতে শুরু করেছে বলে দাবি ন্যাফের। শুধু বিশিষ্টজন বলেই নয়, ২০০-র ওপর নাগরিক সংগঠন ও প্রায় ২৯ হাজার যুব তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

কী কাজ শুরু করেছে ন্যাফ? গান্ধীজির ১৫০ তম জন্মবার্ষিকীকে সামনে রেখে তাঁর দেখানো ১৮টি গঠনমূলক প্রোগ্রামকে পুনরুজ্জীবিত করা শুরু করেছে তারা। যার মাধ্যমে তাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য এই আদর্শের ভিত্তিতে এক নতুন ভারত গড়ে তোলা। ন্যাফের এই উদ্যোগে পাশে দাঁড়িয়েছেন দেশের অন্যতম ক্রীড়াবিদ মেরি কম, আইএম বিজয়নের মত অনেক ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও সমাজকর্মী থেকে বিনোদন জগত, গান্ধীবাদী মানুষ থেকে পদ্ম সম্মান প্রাপক ব্যক্তিত্বরাও।


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button