Kolkata

পুজো উদ্বোধন শুরু হয়ে গেল, ৩টি পুজোর উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী

মহালয়া এখনও ২ দিন বাকি। তার আগেই শুরু হয়ে গেল পুজো উদ্বোধন। বৃহস্পতিবার হল ৩টি পুজোর উদ্বোধন। উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

পুজোর ঢাকে কাঠি পড়ে গেল। মহালয়ার আগেই শুরু হয়ে গেল উদ্বোধন। এবারের পুজোর প্রথম উদ্বোধন হল বৃহস্পতিবার। এদিন ৩টি পুজোর উদ্বোধন হল।

টালা ব্রিজের উদ্বোধনে এদিন উত্তর কলকাতায় এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সুজিত বসুর পুজো হিসাবে খ্যাত শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের দুর্গাপুজোর উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। উদ্বোধন করে অবশ্য সুজিতবাবুকে বাবু বলে সম্বোধন করে স্পষ্ট কিছু বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি সাফ জানিয়েছেন শ্রীভূমির জন্য যেন রাস্তা বন্ধ না হয়। মানুষ বিমান ধরতে পারছেন না, কোথাও যেতে পারছেন না এমনটা যেন না হয়। এমনকি শ্রীভূমির পুজোর জন্য যদি রাস্তা বন্ধ করা হয় তাহলে তার ফল সুজিতবাবুকে ভুগতে হবে বলেও জানিয়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী।

মজার ছলে হলেও এটা যে মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্ট বার্তা তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি কারও। কারণ সুজিত বসুর পুজোর জন্য ভিআইপি রোড বন্ধ হওয়া এবং পরে সেই ভিড় সামাল দিতে বাধ্য হয়ে পুজোয় দর্শনার্থী প্রবেশ বন্ধ করার নজির রয়েছে। ফলে এদিন পুজোর উদ্বোধনের পাশাপাশি সুজিতবাবুকে রাস্তা যাতে বন্ধ না হয় সেদিকে নজর রাখতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজো ছাড়াও এদিন ২টি পুজোর উদ্বোধন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সল্টলেকের এফডি ব্লকের পুজোর উদ্বোধন করেন তিনি। আর একটি উত্তর কলকাতার অন্যতম পুজো টালা প্রত্যয়ের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। ফলে মহালয়ার ২ দিন আগে থেকেই পুজোর উদ্বোধন শুরু হয়ে গেল। শুরু হয়ে গেল সাধারণ মানুষের প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে ঘোরা।

Show More

News Desk

নীলকণ্ঠে যে খবর প্রতিদিন পরিবেশন করা হচ্ছে তা একটি সম্মিলিত কর্মযজ্ঞ। পাঠক পাঠিকার কাছে সঠিক ও তথ্যপূর্ণ খবর পৌঁছে দেওয়ার দায়বদ্ধতা থেকে নীলকণ্ঠের একাধিক বিভাগ প্রতিনিয়ত কাজ করে চলেছে। সাংবাদিকরা খবর সংগ্রহ করছেন। সেই খবর নিউজ ডেস্কে কর্মরতরা ভাষা দিয়ে সাজিয়ে দিচ্ছেন। খবরটিকে সুপাঠ্য করে তুলছেন তাঁরা। রাস্তায় ঘুরে স্পট থেকে ছবি তুলে আনছেন চিত্রগ্রাহকরা। সেই ছবি প্রাসঙ্গিক খবরের সঙ্গে ব্যবহার হচ্ছে। যা নিখুঁতভাবে পরিবেশিত হচ্ছে ফোটো এডিটিং বিভাগে কর্মরত ফোটো এডিটরদের পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে। নীলকণ্ঠ.in-এর খবর, আর্টিকেল ও ছবি সংস্থার প্রধান সম্পাদক কামাখ্যাপ্রসাদ লাহার দ্বারা নিখুঁত ভাবে যাচাই করবার পরই প্রকাশিত হয়।
Back to top button