Lifestyle

২৩ থেকে ৩৩ শতাংশ মহিলা ডেটিংয়ে যান বিনা খরচে খেতে, বলছে খতিয়ান

যাঁর সঙ্গে এত টাকা খরচ করে খেতে যাচ্ছেন, তিনিও তাঁর সঙ্গে এমন কাণ্ড করছেন না তো, প্রেমের জালে জড়িয়ে অযথাই তাঁর পকেট ফাঁকা হচ্ছে না তো?

দারুণ একটা হোটেল বা রেস্তোরাঁ। সেখানে হতে পারে ক্যান্ডল লাইট ডিনার। অথবা ধরুন নিছকই মাঝারি মাপের রেস্তোরাঁয় পেটপুজো। অথবা একটা দারুণ লাঞ্চ। সে ইন্ডিয়ান হতে পারে অথবা কন্টিনেন্টাল। সবই চলতে পারে। যদি পকেট খসাতে না হয়।

অন্য কেউ খরচ করে খাওয়ালে এমন ভালমন্দে তো আপত্তির কিছু থাকতে পারেনা। বরং একদিন বেশ প্রাণভরে খাওয়া দাওয়া হয়। এমনই এক তত্ত্বে নাকি চলছেন অনেক মহিলা। সে যে কোনও বয়সেরই হতে পারেন।

প্রেম করতে এখন আধুনিক প্রজন্ম ডেটিং করছে। কোনও যুবক যদি কোনও যুবতীকে প্রেম নিবেদন করতে চান, অথবা প্রেমের সম্পর্কটা শুরু হয় হয়, অথবা কিছুদিন ধরেই ব্যস্ততার মাঝে সময় বার করে কোনও মহিলার সঙ্গে কিছুটা সময় কাটাচ্ছেন। মনে মনে তাঁকে ভালবেসে ফেলেছেন। মাঝেমধ্যে দেখা হয়। আর তা হয় কোনও রেস্তোরাঁ বা হোটেলে। সেখানে ওই মহিলার মন জয় করতে গ্যাঁটের কড়ি খরচ করে সেই যুবককে রেস্তোরাঁ বা হোটেলে মহিলার মন পছন্দ ডিশ অর্ডার করতে হয়।

দুজনে বসে খেতে খেতে কিছু রোমান্টিক কথা হয়। ভালবাসার কথা। সঙ্গে চলে মুখ। কিন্তু এসব হওয়ার পর এমন মনে করার কোনও কারণ নেই যে ওই মহিলা প্রেমে পড়ে ওই যুবকের সঙ্গে সময় কাটালেন।


বরং ক্যালিফোর্নিয়ার একটি বিশ্ববিদ্যালয় এ বিষয়ে দীর্ঘ সময় ধরে কেস স্টাডি করার পর একটি খতিয়ান সামনে এনেছে। আর সেই খতিয়ান চমকে দিয়েছে গোটা বিশ্বকে।

খতিয়ান বলছে, সব মহিলাই একজনকে ভালবেসে বা তাঁর প্রেমে পড়ে ডেটিংয়ে আসেন না। বরং তাঁদের মধ্যে ২৩ থেকে ৩৩ শতাংশ মহিলা হোটেল, রেস্তোরাঁয় হাজির হন তাঁর প্রেমে হাবুডুবু খাওয়া পুরুষটির ঘাড় ভেঙে ভালমন্দ পেট পুজো করতে। আধুনিক জীবনে এর নাম ‘ফুডি কল’।

সামনে দেখাবেন যে তিনি ওই পুরুষটিকে ভালবেসে ফেলেছেন। তাঁর সঙ্গে মিষ্টি মিষ্টি রোমান্টিক কথাও বলবেন। কিন্তু আদপে ওই মহিলার লক্ষ্য হয় দারুণ একটা ভূরিভোজ। আর সেজন্যই ডেটিং। সেজন্যই পুরুষটিকে সময় দেওয়া। সেজন্যই মন না চাইলেও মুখে রোমান্টিক একটা ভাব রাখা।

খতিয়ান বলছে আধুনিক বিশ্বে প্রতি ৪ জন মহিলার মধ্যে ১ জন মহিলাই ডেটিংয়ে যান স্রেফ খেতে। আর তারজন্যই নানা ছলা কলা। অনেকে সেকথা স্বীকারও করেছেন। শুধু খরচ না করে খাওয়ার জন্যই তাঁরা ডেটিং করেন। অনেক সময় এঁরা বদলে বদলেও সময় দেন পুরুষদের।

চমকে দেওয়া এই খতিয়ান কিন্তু বিশ্বের অনেককে অবাক করেছে। সবচেয়ে বেশি আতঙ্কে পড়েছেন সেসব পুরুষরা যাঁরা এখন ডেটিং করছেন। তাঁদের এখন মনে হতে শুরু করেছে যে মহিলার সঙ্গে তিনি এত টাকা খরচ করে রেস্তোরাঁ, হোটেলে যাচ্ছেন, তিনিও তাঁর সঙ্গে এমন কাণ্ড করছেন না তো!

প্রেমের জালে জড়িয়ে অযথাই তাঁর পকেট ফাঁকা হচ্ছে না তো! নাকি তাঁর সঙ্গিনী তাঁকে সত্যিই ভালবাসেন! সত্যিই, কী ভীষণ দোটানা! তাই না! — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button