Kolkata

পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর করোনা, আছেন আইসোলেশনে

পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর এবার করোনা ধরা পড়ল। তাঁর মাও করোনা পজিটিভ। ভর্তি আছেন হাসপাতালে।

কলকাতা : দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু, খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের পর আবার রাজ্যের এক মন্ত্রী করোনা সংক্রমণের শিকার হলেন। এবার পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর করোনা ধরা পড়েছে। গত বৃহস্পতিবার তাঁর রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তাঁর মায়েরও করোনা ধরা পড়েছে। তিনি আপাতত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। শুভেন্দু অধিকারী অবশ্য হাসপাতালে ভর্তি হননি। তিনি আইসোলেশনে রয়েছেন।

নিয়মমত পরিবারের একজনের করোনা ধরা পড়লে পরিবারের বাকি সদস্যরাও আইসোলেশনে যাওয়ার কথা। সেইমত অধিকারী পরিবার আপাতত আইসোলেশনে। নিজেদের আলাদা করে রেখেছেন তাঁরা।

শুভেন্দু অধিকারীর করোনা উপসর্গ রয়েছে। তবে মৃদু উপসর্গ। শুভেন্দু অধিকারীর মত হেভিওয়েট নেতা করোনায় কাবু এই খবর অবশ্যই রাজ্য প্রশাসনে উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে।

সুজিত বসু, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের মত তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রীরা এক এক করে করোনা সারিয়ে ফিরেছেন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন। কাজেও যোগ দিয়েছেন।

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ কিন্তু কমার নাম নিচ্ছে না। একই জায়গা ধরে রেখেছে সংক্রমণ। প্রতিদিন প্রায় একই সংখ্যক সংক্রমিতের হদিশ মিলছে এ রাজ্যে। খুব অল্প করে হলেও বাড়ছে সুস্থতার হার।

গত একদিনেও সেই ৩ হাজারের উপর সংক্রমিতের হদিশ মিলেছে রাজ্যে। রাজ্যে ৩ হাজার ১৯৬ জন নতুন রোগী পাওয়া গিয়েছে। গত একদিনে নমুনা পরীক্ষা আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪৩ হাজার ৪৩২টি।

রাজ্যে এখন মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ৩৭ হাজার ৮৬৯ জন। যার মধ্যে অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ হাজার ২২১ জন।

গত একদিনে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। রাজ্যে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৬০৬ জন। গত একদিনে যে ৬২ জন প্রাণ হারিয়েছেন তাঁদের মধ্যে কলকাতায় প্রাণ হারিয়েছেন ১৪ জন।

গত একদিনে ৩ হাজার ১৪ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। ফলে রাজ্যে করোনামুক্ত মানুষের সংখ্যাটা দাঁড়িয়েছে ২ লক্ষ ৮ হাজার ৪২ জন। যার হাত ধরে রাজ্যে সুস্থতার হার এদিন আরও সামান্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৭.৪৬ শতাংশ।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button