Health

নতুন রহস্যের মুখোমুখি চিকিৎসা বিজ্ঞান, উত্তর নেই বিজ্ঞানীদের কাছেও

এক নতুন রহস্য এবার বিজ্ঞানীদের মাথা ঘুরিয়ে দিয়েছে। কোনও উত্তর তাঁদের কাছে নেই। আছে শুধু একরাশ বিস্ময়! কীভাবে এটা সম্ভব বুঝে উঠতে পারছেন না তাঁরা।

বছর ৪১ বয়স। বন্ধুদের নিয়ে গিয়েছিলেন সমুদ্র স্নানে। বেশ চলছিল সমুদ্রের ঢেউয়ের সঙ্গে ভাসার আনন্দ উপভোগ। কিন্তু হঠাৎ তাঁর বন্ধুরা লক্ষ্য করেন তাঁর দেখা নেই। শুরু হয় খোঁজ। কিন্তু কোথাও পাওয়া যায়নি।

অবশেষে উদ্ধারকারীরা জল তোলপাড় করে তন্নতন্ন করে খুঁজে ১৬ ঘণ্টা পর তাঁকে খুঁজে পান। উদ্ধারের পর তাঁর দেহ ময়নাতদন্তে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁকে পরীক্ষা করতে গিয়ে জানা যায় তিনি করোনা পজিটিভ ছিলেন।

মৃত্যুর সময় তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন। কিন্তু উপসর্গহীন হওয়ায় তিনি নিজেও হয়তো সেকথা জানতেন না। তাই বন্ধুদের সঙ্গে ছুটি কাটাচ্ছিলেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন তাঁর ভাইরাল লোড এতটাই কম ছিল যে তিনি অসুস্থতাও টের পাননি।

ওই ব্যক্তির দেহ এরপর রেখে পরীক্ষা শুরু হয়। বিভিন্ন সময়ে তাঁর করোনা পরীক্ষাও হতে থাকে। আর সেখানেই চিকিৎসা বিজ্ঞানের এক রহস্য সামনে এসে পড়েছে। যা বিজ্ঞানীদেরও ঘোল খাইয়ে ছাড়ছে। তাঁরাও বুঝতে পারছেন না এটা কীভাবে সম্ভব!

গত দেড় মাসে ওই ব্যক্তির দেহের ২৮ বার করোনা পরীক্ষা হয়েছে। আর ততবারই তা পজিটিভ এসেছে। অর্থাৎ ওই ব্যক্তির মৃত্যুর ৬ সপ্তাহ পরেও তাঁর দেহে করোনা সক্রিয় হয়ে আছে।

মৃত ব্যক্তির দেহে করোনা এতদিন সক্রিয় রয়েছে কীভাবে? এটাই এখন বড় প্রশ্ন হয়ে সামনে এসেছে বিজ্ঞানীদের। ওই ইউক্রেনের বাসিন্দা ইতালিতে বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে এসেছিলেন। তাঁর দেহ এখন ইতালির বিজ্ঞানীদের কাছে এক অন্যতম আশ্চর্য। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.