National

কানপুরে মর্মান্তিক ট্রেন দুর্ঘটনা, মৃত ১২০

কানপুরে ট্রেন দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়াল। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১২০। আহত ২০০ জনের ওপর। তাঁদের চিকিৎসা চলছে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। জোরকদমে উদ্ধারকাজ চলছে। দুর্ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে হাজির হন চিকিৎসক ও উদ্ধারকারী দলের কর্মীরা। হাজির হন রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও। রেল সূত্রের খবর, রবিবার রাত ৩টে নাগাদ কানপুর থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে পুখরায়ানে দুরন্ত গতিতে ছুটে চলা ইন্দোর-পাটনা এক্সপ্রেসের ১৪টি বগি লাইনচ্যুত হয়। গতির জন্য দুমড়ে মুচড়ে একেকটা বগি আর একটার ওপর চড়ে যায়। ট্রেনে তখন অধিকাংশ যাত্রীই ঘুমচ্ছিলেন। আচমকা প্রচণ্ড শব্দ কম্পনে তাঁদের ঘুম ভেঙে যায়। কিন্তু তা শুধু মুহুর্তের অনুভূতি। তার পরক্ষণেই মৃত্যুকে সাক্ষাৎ করেন তাঁরা। বিভিন্ন দিক থেকে ভেসে আসে আর্তনাদের শব্দ। শিশুর কান্না। তীব্র যন্ত্রণা আর চিৎকার।

মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনার সঠিক কারণ এখনও পরিস্কার নয় রেলকর্তাদের কাছে। তদন্ত হবে। এদিকে রাতেই ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করেন রেল আধিকারিকরা। উদ্ধারকার্যে হাত লাগান স্থানীয় বাসিন্দারাও। তবে কয়েকটি বগি এতটাই দুমড়ে গিয়েছে যে গ্যাস কাটার দিয়ে সেখান থেকে মানুষকে বার করা ছাড়া উপায় ছিলনা। সে কাজও সকাল থেকে শুরু হয়। রেলের তরফে জানান হয়েছে ১৪টি বগি লাইনচ্যুত হলেও মূলত ২টি বগির অবস্থা শোচনীয়। সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে ওই ২টি বগিতেই। ৬টি স্লিপার কোচ ও ৮টি এসি কোচ দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। উদ্ধার হওয়া যাত্রীদের বিশেষ ট্রেনে পাটনা পাঠানো হয়। এই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। শোক প্রকাশ করে ট্যুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, দ্রুত উদ্ধারকাজ সম্পূর্ণ করতে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। এদিকে রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু সকলকে আশ্বস্ত করে জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যে বা যারা এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কঠোরতম ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পাশাপাশি মৃতের পরিবার ও আহতদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন তিনি। মৃতদের পরিবারপিছু সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা, গুরুতর আহতদের ৫০ হাজার টাকা ও অল্প আহতদের ২৫ হাজার টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়েছে। ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকারও। এদিন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব জানান, মৃতদের পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা ও আহতদের পরিবারপিছু ১০ হাজার টাকা করে দেবে উত্তরপ্রদেশ সরকার। যাত্রীদের পরিবারের সাহায্যার্থে খোলা হয়েছে হেল্পলাইনও। হেল্পলাইন নম্বর : পাটনা – ০৬১২-২২০২২৯০ / ০৬১২-২২০২২৯১ / ০৬১২-২২০২২৯২ / ০২৫-৮৩২৮৮ । ইন্দোর – ০৭৪১-১০৭২


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *