National

ফিকে হল হোলির রং, তবে সর্বত্র নয়

দোল পূর্ণিমায় এ রাজ্যে রং ফিকে হতেই দেখেছেন সকলে। পরদিন ভারত জুড়ে রঙের উৎসব হোলির রংয়েও উচ্ছ্বাসের অভাব নজর কাড়ল। তবে সব জায়গায় নয়।

নয়াদিল্লি : রংয়ের উৎসব হোলি নিয়ে ভারতে একটা উন্মাদনা প্রতিবছরই কাজ করে। কিন্তু এবার করোনার জেরে সেই উন্মাদনায় ভাটার টান। দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র সহ দেশের অনেক রাজ্যে হোলি পালনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রশাসন।

রাস্তায় নেমে হোলি খেলা বা একজোট হয়ে হোলি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরিবারের মধ্যেই হোলি পালনের পরামর্শ দিয়েছিল প্রশাসন। বাড়তে থাকা করোনার হাত ধরে অনেকেই সেই নির্দেশ পালন করেছেন। কিন্তু কিছু মানুষকে তার মধ্যেও বার হতে দেখা গেছে। একে অপরকে রং দিতে দেখা গেছে। তবে এ চিত্র বিচ্ছিন্নভাবেই নজরে পড়েছে।

পাড়ায় পাড়ায়, অলিতে গলিতে হোলির দিন বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রংয়ের যে ফোয়ারা ছোটে তা এদিন সেভাবে নজরে পড়েনি। অনেকে করোনা থেকে দূরে থাকতে হোলি বর্জন করেছেন। অনেকে প্রশাসনের পরামর্শ মেনে দূরে থেকেছেন রং থেকে। অনেকে পরিবারের সকলে মিলে বাড়িতেই ছাদ, বারান্দা বা উঠোনে রং খেলেছেন।

আবার বারাণসীতে দেখা যায় এদিন রংয়ের উৎসবে মাতোয়ারা অনেকে। সেখানে দল বেঁধে হোলি খেলার ছবিও ধরা পড়েছে। হৈহৈ করে রং লাগানো হয়েছে। সঙ্গে ছিল গান, নাচ, আনন্দ।

অযোধ্যায় সরযূ নদীর পাড়েও আয়োজন হয়েছিল হোলি উৎসবের। অনেক রাস্তায় হোলি খেলার ছবি ধরা পড়েছে। কলকাতার কিছু জায়গাতেও হোলির রং বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চড়েছে। রং খেলায় মেতেছেন অনেকে।

মহারাষ্ট্রেও পাবলিক প্লেসে হোলি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। রবিবার রাতেও মুম্বইয়ের বিভিন্ন জায়গায়ে চলে পুলিশি টহল। মানা করা হয় পরিবারের বাইরে একসঙ্গে হয়ে হোলি খেলায়।

তবে তার মধ্যেও সোমবার হোলি খেলতে কিছু মানুষকে নামতে দেখা গেছে। ছোটদের উৎসাহ ছিল সবচেয়ে বেশি। তবে মোটের ওপর হোলির রং ছিল ফিকে। কারণ সিংহভাগ মানুষই এবার হোলি থেকে নিজেদের দূরে রেখেছেন। আবাসনে হোলি পালিত হয়নি। ডিজে বা রেন ডান্সও হয়নি। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show More
Back to top button