World

৩৭ মিনিট চুষে বৃদ্ধের মূত্র বার করলেন চিকিৎসক, বাঁচালেন প্রাণ

বেশ কিছুক্ষণ চেষ্টা চালিয়েও কোনও ফল না হওয়ায় আরও চিন্তায় পড়ে যান চিকিৎসক। বুঝতে পারেন বৃদ্ধের অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে। তিনি মনস্থির করে ফেলেন।

অনেকক্ষণের বিমান সফর। চিনের গুয়াংঝু থেকে নিউইয়র্ক। মধ্যরাতে উড়ে চলেছে বিমান। বিমান মাটিতে নামতে তখনও ৬ ঘণ্টার অপেক্ষা। আর ঠিক সেই সময় বিমানে থাকা এক বৃদ্ধ যাত্রীর পেটে শুরু হয় যন্ত্রণা।

বিষয়টি বিমানকর্মীদের নজরে আসে। তাঁরা ঘোষণা করেন একজন যাত্রীর চিকিৎসার প্রয়োজন। যদি বিমানে কোনও চিকিৎসক থাকেন তাহলে তিনি যেন এগিয়ে আসেন। এটা শোনার পর ওই বিমানেই সফররত ভাসকিউলার সার্জন জ্যাং হং এগিয়ে আসেন। পরীক্ষা করেন যন্ত্রণা কাতর ওই বৃদ্ধকে।

জ্যাং দেখেন ওই বৃদ্ধের মূত্রথলিতে প্রায় ১ লিটার মূত্র জমা হয়ে আছে। কিন্তু তা স্বাভাবিক নিয়মে বার হতে পারছেনা। এটা এক ধরনের রোগ।

তিনি নিজে চিকিৎসক হওয়ায় বুঝতে পারেন যেভাবে ক্রমশ মূত্র মূত্রথলিতে বেড়ে যাচ্ছে তাতে যে কোনও মুহুর্তে পেটের মধ্যেই মূত্রথলি ফেটে যেতে পারে। ফলে জমে যাওয়া মূত্র যেভাবে হোক বার করে আনতে হবে।


জ্যাং তখন তাঁর কাছে থাকা ও বিমানে পাওয়া যাবে এমন জিনিসপত্র জোগাড় করা শুরু করেন। দ্রুত তিনি সিরিঞ্জ, পোর্টেবল অক্সিজেন মাস্ক, বটলড মিল্কের স্ট্র ও একটি টেপ জোগাড় করেন। তারপর সিরিঞ্জ দিয়ে মূত্রথলি থেকে মূত্র বার করে আনার চেষ্টা শুরু করেন।

বেশ কিছুক্ষণ চেষ্টা চালিয়েও কোনও ফল না হওয়ায় আরও চিন্তায় পড়ে যান চিকিৎসক। বুঝতে পারেন বৃদ্ধের অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে। অগত্যা তিনি মনস্থির করে ফেলেন। এক বিমানকর্মীকে বলেন একটি বোতল ধরে থাকতে। যা দেখে বোঝা যায় কতটা মূত্র নির্গত হল।

এরপর একটি ক্যাথিটার ওই বৃদ্ধের দেহে প্রবেশ করিয়ে ক্যাথিটারের অন্যমুখ ধরে চুষতে থাকেন। মুখ দিয়ে চোষায় যে প্রবল টান পড়ে তাতে বৃদ্ধের মূত্রথলি থেকে ক্রমশ পাইপ বেয়ে মূত্র বেরিয়ে আসতে থাকে।

ওই চিকিৎসক ক্যাথিটার ধরে চুষতে থাকেন। আর মূত্র বার করতে থাকেন। এভাবে চলে প্রায় ৩৭ মিনিট। তারমধ্যে প্রায় ৮০০ মিলিলিটার মূত্র বৃদ্ধের পেট থেকে বার করে আনেন তিনি।

এতটা মূত্র বার হয়ে যাওয়ায় বৃদ্ধ তখন অনেকটা সুস্থ অনুভব করতে শুরু করেছেন। বিমানের সকলেই ওই চিকিৎসকের প্রশংসায় তখন পঞ্চমুখ।

কোনও কিছুর পরোয়া না করে এভাবে মুখ দিয়ে টেনে মূত্র বার করে একজন মানুষের জীবন বাঁচানোয় জ্যাংকে সকলেই বাহবা জানান। পরে বিমান অবতরণ করলে ওই বৃদ্ধকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। — সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button