National

লজ্জায় কুঁকড়ে পরীক্ষা দিতে হল ছাত্রীদের!

এনইইটি পরীক্ষা দিতে কেরালার কান্নুরে টিআইএসকে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে হাজির হয়েছিলেন ছাত্রীরা। পরীক্ষার একটা চাপ তো ছিলই। সেইসঙ্গে পরীক্ষার হলে ঢোকার আগে আঁতকে ওঠার মত নির্দেশে কার্যতই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন ছাত্রীরা। পরীক্ষার্থীদের অধিকাংশেরই বয়স ১৯-২০। অভিযোগ এই বয়সের ছাত্রীদের পরিদর্শক সাফ জানিয়ে দেন পোশাকে কোনও ধাতব বস্তু থাকলে তা পরে পরীক্ষার হলে ঢোকা যাবেনা। সিবিএসই-র আইন মেনে নাকি এই নির্দেশ। ছাত্রীদের দাবি, তাঁদের সাফ জানানো হয় মহিলাদের উর্ধ্বাঙ্গের অন্তর্বাসে ধাতব হুক বা বোতাম থাকে। তাই তাঁদের তা বাইরে ছেড়ে রেখেই পরীক্ষা দিতে হবে। না হলে পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হবে না। পরীক্ষা শুরু হতে আর সামান্য সময় হাতে। এই অবস্থায় এমন নির্দেশ পালনে কার্যত বাধ্য হন অনেক ছাত্রী। যা নিয়ে প্রবল ক্ষোভে ফুঁসছেন অভিভাবকরা। তাঁদের দাবি ১৯-২০ বছরের একটি মেয়েকে এভাবে পরীক্ষা দিতে বললে তাদের মনের ওপর ভয়ংকর প্রভাব পড়তে বাধ্য। লজ্জায় অনেকে মন দিয়ে পরীক্ষা দিতে পারেননি বলেও অভিযোগ করেন অভিভাবকরা। শুধু উর্ধ্বাঙ্গের অন্তর্বাস ছেড়ে ঢোকাই নয়, অনেককে পরনের জিনসও খুলে বাইরে রেখে পরীক্ষার হলে ঢুকতে হয়। কারণ জিনসেও ধাতব বোতাম থাকে!

 


Show Full Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button