Kolkata

জেলে নয়, গৃহবন্দি ৪ নেতা, বৃহত্তর বেঞ্চে গেল মামলা

জামিন হল না ঠিকই, তবে জেল হেফাজতেও আর থাকতে হচ্ছেনা তাঁদের। ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গৃহবন্দি রাখার নির্দেশ দিল আদালত।

নিম্ন আদালতে জামিন পাওয়ার পরও কলকাতা হাইকোর্টের সেই রায়ের ওপর স্থগিতাদেশের জেরে জেলেই থাকতে হয়েছে ৪ নেতা ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে।

কলকাতা হাইকোর্টের সেই স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদনের শুনানি চলছে কলকাতা হাইকোর্টে। সেখানেই শুক্রবার জামিনকে কেন্দ্র করে ২ বিচারপতির রায়ে অমিল দেখা দেয়।


পড়ুন আকর্ষণীয় খবর, ডাউনলোড নীলকণ্ঠ.in অ্যাপ

এই আবেদনের শুনানিতে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল জামিনের পক্ষে ছিলেন না। অন্যদিকে বেঞ্চের অন্য বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জামিনের পক্ষে মত দেন। ফলে সিদ্ধান্ত হয় আপাতত ৪ নেতা মন্ত্রীকেই গৃহবন্দি অবস্থায় থাকতে হবে।

এদিকে গৃহবন্দি রাখার বিরুদ্ধে সোচ্চার হন সুব্রত-ফিরহাদের আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি। তিনি আদালতকে জানান এঁদের গৃহবন্দি রাখা মানেও তাঁদের বন্দিই রাখা। তাঁরা মুক্তি পাবেন না কেন সে প্রশ্ন তোলেন অভিষেক মনু সিংভি।

গৃহবন্দি অবস্থায় ৪ নেতা বাড়িতেই থাকতে পারবেন। তবে বাড়ি থেকে বেরিয়ে কোথাও যেতে পারবেননা। যাঁরা কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কাজ করছেন তাঁরা বাড়িতে বসেই ভিডিও কনফারেন্সের মধ্যে দিয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিতে পারবেন। তবে দফতরে গিয়ে কোনও বৈঠক করতে পারবেননা।

শারীরিক অসুস্থতার ক্ষেত্রে সবরকম চিকিৎসা তাঁরা করাতে পারবেন। এদিন ২ বিচারপতির বক্তব্যে অমিল তৈরি হওয়ায় এই মামলা বৃহত্তর বেঞ্চে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়।

Show Full Article
Back to top button