Festive Mood

কোথা থেকে এল এপ্রিল ফুলস ডে

এপ্রিলের ১ তারিখ মানেই পরিচিত বা অপরিচিতদের পদে পদে বোকা বানানোর মোক্ষম সুযোগ। এর ইতিহাস কিন্তু এতটাও বালখিল্যসুলভ নয়। এই দিনের ঐতিহাসিক মাহাত্ম্য অপরিসীম।

এপ্রিলের ১ তারিখ মানেই ‘এপ্রিল ফুলস ডে’। পরিচিত বা অপরিচিতদের পদে পদে বোকা বানানোর এদিন একেবারে মোক্ষম সুযোগ। যতরকমের ইচ্ছা ছলনা কর। সবেতেই এদিন সাত খুন মাফ! হাতে হাতকড়াও পড়বেনা! আর কারোর চোখ রাঙানিও সইতে হবে না।

খালি মিষ্টি করে সোল্লাসে বললেই হল ‘এপ্রিল ফুল, এপ্রিল ফুল’। তবে ‘এপ্রিল ফুল’-এর ইতিহাস কিন্তু এতটাও বালখিল্যসুলভ নয়। এই দিনের ঐতিহাসিক মাহাত্ম্য অপরিসীম।

কয়েক শো বছর পিছিয়ে গেলেই জানা যায় সেই ইতিহাস। সন ১৫৮২। সেইবছর থেকে ইউরোপের দেশগুলিতে প্রবর্তন হল এক নতুন বর্ষপঞ্জির। রোমের ক্যাথলিক চার্চের ত্রয়োদশতম পোপ গ্রেগরির বর্ষপঞ্জি অনুসারে জানুয়ারির ১ তারিখ নির্দিষ্ট হল ইংরাজি নববর্ষ হিসেবে। কিন্তু ‘গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার’ কিছুতেই মানতে চাইলেননা এতদিন ধরে ‘জুলিয়ান ক্যালেন্ডার’ মেনে আসা মানুষজন।

আরেকদল তো নতুন বছরের তারিখ পরিবর্তনের কথা জানতেই পারলেন না। ফলে পরের বছর অর্থাৎ ১৫৮৩-তে এপ্রিলের পয়লা তারিখে আগের মতই নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাতে থাকলেন অনেকে। তাঁদেরকে ‘বোকা’ বানাতে গ্রেগরিয়ানপন্থী অল্পবয়সী ছেলেছোকরার দল লোকজনের পিছনে বদমায়েশি করে কাগজে ‘এপ্রিল ফিশ’ কথাটি লিখে মজা দেখতে লাগল। আর সেই মজার কর্মকাণ্ডের হাত ধরে জন্ম নিল ‘এপ্রিল ফুলস ডে’।

আবার রোমের ইতিহাসে পাওয়া যাচ্ছে অন্য তত্ত্ব। প্রাচীন রোমে মার্চের ২৫ তারিখ থেকে এক অদ্ভুত উৎসব পালনের রেওয়াজ ছিল। সেই উৎসবের রেশ থাকত এপ্রিলের ১ তারিখ অবধি।

দেবতা অ্যাটিসকে উৎসর্গ করে ‘হিলারিয়া’ নামে একটি মজার উৎসব পালিত হত রোমে। সেই উৎসবে ছদ্ম অবতার বা পোশাকের আড়ালে আবালবৃদ্ধবনিতা নিজেদের পরিচয় লুকিয়ে অন্যদের বোকা বানাতেন। কালক্রমে সেই বোকা বানানোর উৎসব পয়লা এপ্রিল তারিখকে ঘিরে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

চতুর্দশ শতকের বিখ্যাত ইংরাজি সাহিত্যিক জিওফ্রে চসার অবশ্য জানাচ্ছেন অন্য গল্প। একবার তাঁকে নাকি আচ্ছাসে ঘোল খাইয়েছিল এক খ্যাঁকশিয়াল। এপ্রিলের পয়লা তারিখে তাঁর সেই বোকা বনে যাওয়ার গল্পের উল্লেখ পাওয়া যায় ‘দ্যা নানস প্রিস্টস টেল’ গ্রন্থে।

সেই গল্পগাথাই একসময় ইংল্যান্ডসহ গোটা ইউরোপের মানুষের অন্যকে বোকা বানানোর মোক্ষম অস্ত্রে পরিণত হয় বলে মনে করেন ইতিহাসবিদরা। আবার আরেকদলের মতে, ১৩৯২ সালে লেখা চসারের ‘দ্যা ক্যানটারবেরি টেলস’ গ্রন্থের বোকা নায়কের ১ এপ্রিল বোকা বনে যাওয়ার গল্পের থেকেই ‘এপ্রিল ফুলস ডে’-র ধারণার জন্ম।

অপর একটি মত অনুযায়ী, ১৭০০ খ্রিস্টাব্দ নাগাদ এপ্রিলের ১ তারিখ থেকে ইংল্যান্ডের মজারুরা নানারকম মজার মজার গল্প বলে অন্যকে বোকা বানাতেন। সেইসময় থেকে নাকি উদ্ভব হয় ‘এপ্রিল ফুলস ডে’। তবে পয়লা এপ্রিলের জন্ম বা ইতিহাস নিয়ে গল্প যাই থাকুক, এদিন অন্যকে নির্দ্বিধায় বোকা বানানোর দিন। সুষ্ঠুভাবে কারোর ক্ষতি না করে নিখাদ আনন্দে মেতে ওঠার অগাধ স্বাধীনতার দিনের নামই তো এপ্রিল ফুলস ডে!

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published.