Horoscope

মেষ রাশির ২০২১ বছরটা কেমন কাটবে ও কি করলে ভালো থাকবেন – শিবশংকর ভারতী

লেখক জ্যোতির্বিদ শিবশংকর ভারতীর কলমে মেষ রাশির ২০২১ সালের রাশিফল - কেমন কাটবে ২০২১ সালের ১লা জানুয়ারি থেকে ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত তার আগাম ধারনা।

যে কোনও মানুষের ব্যক্তিগত জন্মকুণ্ডলীর সার্বিক গ্রহাবস্থানের ওপর নির্ভর করে সুখদুঃখ বা হাসিকান্না। মানসিক শান্তি অশান্তি ইত্যাদি বিষয়গুলি শুধুমাত্র রাশিনির্ভর নয়, সামগ্রিকভাবে গ্রহাবস্থানভিত্তিক। ফলে, ফলের হেরফের হওয়াটা স্বাভাবিক।

এখানে রাশির ওপর ভিত্তি করে ভাগ্যফল নিয়ে যা লেখা তা অভিজ্ঞতায় দেখা একটা আভাস মাত্র। এটাই বাস্তব সত্য বলে ধরে নিয়ে চলাটা কোনও কাজের কথা নয়, চলার কারণও আছে বলে মনে হয় না।

যাই হোক, ‘মানুষের মনের পুষ্টি আর বৃদ্ধির অগ্রগতিতে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করে পরিবেশগত শিক্ষা’, একথা বলেছেন ফ্রয়েড। একই সঙ্গে চরিত্রের সংজ্ঞায় পরিবেশের প্রভাব যে কতখানি তা পাওয়া যায় ফ্রয়েডেরই সহকর্মী ও শিষ্য আলফ্রেড অ্যাডলারের কথায়। তিনি চরিত্রের মনোজ্ঞ সংজ্ঞায় বলেছেন, ‘চরিত্র একটি মানসিক সংস্থা। কোনও ব্যক্তি যে পরিবেশের মধ্যে চলাফেরা করে সেই পরিবেশের সঙ্গে সে যে গুণ ও প্রকৃতি নিয়ে আদানপ্রদান করে তাই-ই হল তার চরিত্র।’

টমাস ভ্যান ডি ভেলডি বলেছেন, ‘কোনও মানুষের সেই গুণসমষ্টিই হল তার চরিত্র যেগুলি অন্য লোকের সঙ্গে ব্যবহারে তাদের চোখে ধরা পড়ে এবং যেগুলি অন্য লোক হতে তাকে পৃথক করে দেখায় অর্থাৎ যে গুণগুলি ব্যক্তির আচারে, আচরণে প্রতিক্রিয়ায় ও প্রকৃতিতে পরিস্ফুট হয়ে ওঠে।’

অনেকের রাশিফল মেলে, অনেকের মেলে না। কারণ, তিনটে নক্ষত্র নিয়ে হয় একটা রাশি। রাশি এক হলেও তিনটে নক্ষত্রের ফল আলাদা।

আমি যতটা সম্ভব সবদিক বজায় রেখে ২০২১ সালের ১লা জানুয়ারি থেকে ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত মোটামুটি বছরটা কেমন যাবে তার সম্ভাব্য ফলাফল লিখতে চেষ্টা করেছি। তবে যেখানে যে রাশির সতর্কতা নির্দেশ করেছি – সেখানে আমার অনুরোধ, অতি অবশ্যই যেন তা পালন করা হয়। নইলে কিন্তু অসম্ভব রকমের অশান্তি ও ক্ষতি অনিবার্য। আমি জ্যোতির্বিদ। করার ক্ষমতা কিছুই নেই – একমাত্র সতর্ক করা ছাড়া।

এই বছর দেহ ও মনের স্বস্তি অনেকটাই বাড়বে। কর্মজীবন ও অর্থভাগ্যের কমবেশি উন্নতি হবে তবে বাধা অস্থিরতাও থাকবে। অনেক বারই কোথাও না কোথাও মাঙ্গলিক কর্মে অংশগ্রহণ করবেন।

অপ্রত্যাশিত কোনও শুভ যোগাযোগ উৎসাহিত করবে। কোথাও বেড়াতে যাবেন। স্বাস্থ্য মাঝে মধ্যে বিব্রত করবে। সামান্য কারণে পরিবারের শান্তি প্রায়ই বিঘ্নিত হবে।

অপ্রত্যাশিত অর্থ নষ্টের যোগ। কোনও মূল্যবান দ্রব্য হারাতে পারে। বাড়িতে শুভ কর্মানুষ্ঠান যোগ। প্রাচীন মন্দির ও দেবী দর্শন যোগ। প্রেমপ্রীতির ক্ষেত্রে সময়টা মোটামুটি ভালো। আন্তরিকতা বাড়বে।

মেষলগ্নের স্বাস্থ্য উদ্বেগসূচক নয়। কর্মক্ষেত্র ও অর্থভাগ্য পূর্বের তুলনায় অনেক শুভ।

কি করলে একটু ভালো থাকবেন :

এখানে যে প্রতিকারগুলি রাশি অনুযায়ী করা হল তা শুধুমাত্র এক বছরের জন্য। প্রতিকারগুলি আমার মনগড়া কোনও কথা নয়। বিভিন্ন সময়ে ভারতের নানা প্রান্তে ভ্রমণকালীন পথচলতি সাধুসঙ্গের সময় লোক-কল্যাণে সাধুদের বলা প্রতিকারগুলিই এখানে করা হল।

প্রতি মঙ্গল ও শনিবার নিত্য পুজো হয় এমন হনুমান মন্দিরে একটা চাঁপা ফুল, না পেলে জবা আর সুমিষ্ট পাকা ফল যা মন চায় নিয়ে পুজো দিন, দেখবেন দারুণভাবে বিপদআপদ থেকে রক্ষা পাবেন। সংসার ও প্রতিষ্ঠা জীবনের দুর্ভোগও কাটবে অপ্রত্যাশিতভাবে।

Show More
Back to top button