Tuesday , May 21 2019
Bengali Horoscope Sagittarius

ধনু রাশির ২০১৯ বছরটা কেমন যাবে ও কি করলে ভালো থাকবেন – শিবশংকর ভারতী

পাঠক-পাঠিকাদের অবগতির জন্য বলি, এখানে যে প্রতিকার দেওয়া হল তা সারা জীবনের জন্য নয়। সাময়িক অস্বস্তিকর সময়ের হাত থেকে খানিকটা স্বস্তি পেতে। যখন সময়টা ধীরে ধীরে শুভ হয়ে উঠবে, তখন প্রতিকার না করলেও চলবে। করলে কল্যাণ কিছু হবে, না করলে ক্ষতি কিছু হবে না। প্রতিকারটা জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর – এক বছরের জন্য করতে পারেন।

প্রতিকারগুলো নিষ্ঠার সঙ্গে করলে ফল অবধারিত। অশ্রদ্ধা, অবিশ্বাস ও অভক্তিতে করলেও ফলের মার নেই। তবে ফল তাড়াতাড়ি না দেরিতে, তা নির্ভর করে ব্যক্তিগত জন্মকালীন সার্বিক গ্রহাবস্থানের উপর, যা বিশদ আলোচনা সাপেক্ষ।

এই রাশিতে দেবগুরু বৃহস্পতির ভাব তেজোধর্মী। এই রাশির জাতক জাতিকাদের মধ্যে মূর্ত হয়ে উঠেছে দ্ব্যত্মক ভাব। একইসঙ্গে রজো ও সত্ত্বগুণের সমাহার। এদের ভিতর প্রচ্ছন্ন থাকে অহংকার। অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে এরা মুখর। এরা চট করে কাউকে বিশ্বাস করতে পারে না। সন্দেহের ভাবটা থাকে ঘরে বাইরে।

যোগ্যতার তুলায় এরা উপার্জন করে বেশি। এই রাশির মধ্যে দয়া মায়া সহিষ্ণুতাও অনেক বেশি। আত্ম প্রতিষ্ঠা আসে নিজ চেষ্টায়। অন্যের উপর এদের ভরসা কম। নিজের কাজ নিজেই করতে বেশি ভালোবাসে। জাতকের মধ্যে স্ত্রৈণের সংখ্যা কম। অসদুপায়ে কিছু অর্থ জীবনের কোনও না কোনও সময়ে এসে যায়। বিবাহের পরবর্তীকালে ভাগ্যের প্রকৃত বিকাশ ঘটে। বিবাহিতজীবনে স্ত্রীর সঙ্গে প্রায়ই মতের মিলের অভাব দেখা দেয়।

এ বছর কর্মজীবন থাকবে উদ্বেগ ও অস্থিরতায় ভরা। পেশা বা ব্যবসায় কোনও ঝুঁকি নিয়ে অর্থ বিনিয়োগ কিংবা ওই জাতীয় কোনও কাজ না করাই শ্রেয়। ব্যবসায় ক্ষেত্র চলবে উত্থান পতনের মধ্যে দিয়। সমস্ত কাজে বাধা একটা থেকে যাবে। অপ্রত্যাশিত অর্থ ক্ষতির সম্ভাবনা। পেশায় নিযুক্ত ও চাকুরিয়াদের বছরটা স্বস্তিতে কাটবে না।

আর্থিক বিষয়ে মানসিক উদ্বেগ ও অশান্তি একটা থেকে যাবে। প্রত্যাশিত অর্থাগমে বাধা জন্মাবে। পরিশ্রমানুসারে আর্থিক উন্নতির আশা নেই। অসম্ভব ব্যয় বাড়বে। কোনও না কোনও ভাবে অর্থ নষ্ট বা ক্ষতির সম্ভাবনা প্রবল। নতুন অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সময়টা অনুকূলে নয়। আর্থিক অবস্থার উল্লেখযোগ্য কোনও পরিবর্তনের আশা নেই।

বর্তমানে স্বাস্থ্যের যেমন ধীরে ধীরে খানিকটা অবনতি হবে তেমন নানান কারণে মানসিক শান্তিও বছরের অধিকাংশ সময় বিঘ্নিত হবে। উটকো ঝামেলা আর ব্যয় বাড়বে অসম্ভব। প্রত্যাশিত অর্থাগমে বড্ড বাধা থাকবে।

বছরটা কাটবে নানা অস্বস্তি আর অশান্তির মধ্যে দিয়ে। বিবাহিত জীবনে মতবিরোধজনিত অশান্তি মানসিক শান্তি মাঝে মধ্যেই বিঘ্নিত হবে। কোনও কাজটাই সুন্দরভাবে হবে না। অপ্রত্যাশিতভাবে টাকা নষ্ট হবে। তৃতীয় কোনও ব্যক্তির অনুপ্রবেশ অশান্তির মাত্রা বাড়াবে। যারা পড়াশুনা নিয়ে আছেন তাদের মানসিক অস্থিরতা বাড়বে অতিমাত্রায়।

ধর্মের প্রতি মনের কোনও আকর্ষণ থাকবে না। দীক্ষার্থীদের দীক্ষা লাভে বাধা জন্মাবে। কারও স্বাস্থ্য বা অন্য যে কোনও কারণে এ বছর ব্যয় বাড়বে জলের ধারায়। ঋণে জড়াতে পারেন। প্রথম থেকে সতর্ক থাকুন। শত্রু থাকবে তবে ক্ষতি কিছু হবে না। আর্থিক ব্যাপারে এখন বিশ্বাস করে টাকা পয়সা না দেওয়াই ভালো।

একান্ত দীক্ষা নিতে হলে গুরু নির্বাচনে সতর্কতা প্রয়োজন তা না হলে জালি গুরুর পাল্লায় পড়ে দীক্ষা নিয়ে জন্মটা তো যাবে, পরের জন্মটাও।

কি করলে একটু ভালো থাকবেন :

বাড়িতে মা লক্ষ্মীর সঙ্গে নারায়ণের ছবি থাকলে ভালো, না থাকলে শুধু নারায়ণের ছবি সংগ্রহ করে নিন। প্রতিদিন দুটো ধূপকাঠি দিয়ে আরতি করে পরে বোঁটাসমেত একটা তুলসী নারায়ণের চরণে দিয়ে প্রণাম করুন। সঙ্গে চন্দনের কোনও প্রয়োজন নেই। এ কাজে মেয়েদের বাধা নেই। সারা বছরের অনেক দুর্গতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন। নারায়ণ পুজোতে নিরামিষ খাওয়ার দরকার নেই।

কি রঙের পোশাক পরবেন :

পোশাকের রং হলুদ, গোলাপি, হালকা লাল রাখতে চেষ্টা করুন। সারাটা বছর সবদিক দিয়ে অনেক স্বস্তিতে থাকবেন। বাড়ি ঘরের রং হলুদের উপর ভরসা করলে অর্থ সম্মান দুইই আসবে।

One comment

  1. Can you pls send me through email about your routine NEELKANTHO writing…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *