বাৎসরিক রাশিফল ১৪২৪ ও প্রতিকার

Bengali Horoscope

ব্যক্তিগত রাশি অনুসারে ‘ফল’ কতটা মিলবে তা দিয়েই শুরু করা যাক। এখানে যে ফলাফল লেখা হল তা একেবারেই অনুমান ভিত্তিক। বিষয়টা একটু খোলসা করে বলা যাক। রাশি এক হলেও নক্ষত্র ভেদে এক এক জাতিকার মানসিক গঠন, চিন্তাভাবনা, চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, জীবনপ্রবাহ এক একরকম হয়ে থাকে; এর সঙ্গে থাকে জন্মকালীন রাশিচক্রে শুভাশুভ গ্রহের অবস্থান। রাশি এক হলেও নক্ষত্র ইত্যাদি ভেদে ফলাফলের তারতম্যটাই স্বাভাবিক। অত্যন্ত সূক্ষ্ম বিচার করে ফলাফল লেখা সম্ভব হয় না। প্রত্যেকটা রাশির কোনও একটা নক্ষত্রকে ধরে নিয়ে গড়ে একটা অনুমান ভিত্তিক শুভাশুভ ফল লেখা হয়। ফলে কারও ফল মেলে দারুণভাবে, কারও কিছু কিছু, কারও বা একেবারেই নয়। কোনও প্রতিকারই আজীবনের জন্য নয়। সময় ধীরে ধীরে শুভ হলে তখন প্রতিকার না করলেও চলবে। কারণ তখন না করলে ক্ষতির কিছু নেই। তবে করে গেলেও খারাপ কিছু নয়। যাইহোক, এখন দেখা যাক বছরটা কেমন যাবে।

মেষ : মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের অর্থভাগ্য ও কর্মজীবনে কমবেশি উন্নতি হবে। অপ্রত্যাশিত অর্থলাভের সম্ভাবনা আছে। অনেক দিনের আশা পূরণ হতে পারে এ বছর। দেহ-মনে স্বস্তি কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর অনেকটা ফিরে আসবে। ‌যাঁরা কাজ খুঁজছেন, অর্থাৎ কর্মপ্রার্থী, তাঁদের জন্য এ বছরটা শুভ। শিল্পী, সাহিত্যিক, ব্যবসায়ীদের যোগাযোগের পথ প্রসারিত হবে। নিজের বাড়িতে বা নিকট আত্মীয়ের বাড়িতে শুভ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারেন। কোনও আনন্দ সংবাদ আসতে পারে। এ বছর খরচ বাড়তে পারে বটে, তবে সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অর্থাগমও অব্যাহত থাকবে। কোনও কাজের জন্য প্রশংসা পেতে পারেন। মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের বেশ কয়েকবার ভ্রমণ‌যোগ রয়েছে। বিদ্যার্থীদের ক্ষেত্রে পড়াশোনাটাই প্রধান। পড়াশোনার ক্ষেত্রে মনঃসংযোগ সামান্য বাড়তে পারে। বিবাহিত জীবনে পারিবারিক অশান্তি কমবে। আসবে স্বস্তি। ধর্মীয় ক্রিয়াকলাপে আকর্ষণ বাড়বে। দীক্ষাপ্রার্থীদের অনেকের গুরুলাভ ও তীর্থভ্রমণ হবে। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্য সময়টা অনুকূল। নতুন প্রেমে পড়ে থাকলে সময় সুখের হবে। বাড়বে আনন্দ। মেষ রাশির জাতক-জাতিকারা কোনও পরিচিতের শত্রুতার মুখে পড়তে পারেন। মদ্যপানে আসক্তি থাকলে তা আৰও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কোনও মূল্যবান জিনিস খোয়া যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দু’চাকা নিয়ে ‌যাঁরা ঘোরেন তাঁদের পায়ে বড় আঘাতের সম্ভাবনা রয়েছে। সন্তান নিয়ে উদ্বেগ থাকবে।

প্রতিকার : শনি ও মঙ্গলবার কোনও হনুমান মন্দিরে একটি নিখুঁত মিষ্টি ফল ও রঙিন সুগন্ধি ফুল দিয়ে প্রণাম করুন। সারা বছর এটা মেনে চলতে হবে। সঙ্গে মনের ইচ্ছেমত দক্ষিণা দিলেই হবে। এজন্য আর কোনও নিয়ম মানার প্রয়োজন নেই।

বৃষ : বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের দেহ-মনে স্বস্তি থাকবে না। অসম্ভব ব্যয়বৃদ্ধির সম্ভাবনা। যা দেহ-মনের অস্বস্তি আরও বাড়াবে। আচমকা বড় ধরণের খরচের মুখে পড়তে হবে। তবে পাল্লা দিয়ে অর্থাগমে ভাটা পড়বে না। শারীরিক অস্বস্তি থাকলেও তাতে বড় ধরণের সমস্যার মুখে পড়তে হবে না। কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভে বাধা থাকবে। চাকুরীজীবী ও পেশাদারদের কর্মজীবনে অস্বস্তি ভোগ করতে হবে। ব্যবসায়ীদের আর্থিক অবস্থার উত্থান না হলেও পতন হবে না। তবে উদ্বেগ অশান্তির মধ্যে ব্যবসা করতে হবে। যদিও এসবের জন্য যোগাযোগ ব্যাহত হবে না। বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের নিকট আত্মীয়ের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে পারে। স্বজনদের শারীরিক সমস্যা উদ্বেগের কারণ হতে পারে। দোষ না করেও সমালোচনার মুখে পড়তে হবে। শত্রুতার সম্মুখীন হতে হবে। বন্ধুদের থেকে আঘাত পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ধর্মের প্রতি আকর্ষণ বাড়বে। মন্দিরে ভ্রমণের যোগ রয়েছে। বাড়িতে মাঙ্গলিক কাজ বা সুসংবাদের সম্ভাবনা রয়েছে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের দিনগুলো মেঘ-রোদের মত কাটবে। কখনও অশান্তি তো কখনও খুশি বিরাজ করবে। দুজনে মন্দিরে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকষ৪ণ প্রবলভাবে বৃদ্ধি পাবে। প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্য আচমকা যোগাযোগ আসার সম্ভাবনা আছে।

প্রতিকার : প্রতি শনি ও মঙ্গলবার কোনও খাবার চিবিয়ে তা মুখ থেকে বার করে কাককে খেতে দেবেন। দেহ-মনের অস্বস্তি দূর হবে। সংসার ও পেশাগত জীবনে অনেক অসুবিধা দূর হবে। ভোগান্তি মিটে স্বস্তি আসবে। বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা কোনও বৃহস্পতিবারে নৃসিংহনাথের ছবি ঠাকুরের সিংহাসনে রেখে দুটি ধূপকাঠি দিয়ে আরতি করুন। তারপর ছবিতে স্পর্শ প্রণাম করুন ৩ বার। এবার বোঁটা সমেত একটি তুলসী পাতা নৃসিংহনাথের পায়ে ছুঁইয়ে খেতেও পারেন, রেখেও দিতে পারেন। আলাদা কোনও নিয়ম নেই। সারাবছর করলে অনেক দুর্ভোগ থেকে নিষ্কৃতি মিলবে।

মিথুন : মিথুন জাতক-জাতিকাদের নানা ধরণের উদ্বেগ, অশান্তির মধ্যেই দিন কাটবে। অস্থিরতা কাজ করবে। মতবিরোধ, কলহ লেগে থাকবে। শরীর খুব স্বস্তি দেবেনা। কর্মক্ষেত্রে উদ্বেগ থাকবে ঠিকই, তবে তার মধ্যেও আসার আলো দেখা যাবে। খরচের চাপ থাকবে। তবে অর্থাগমে অসুবিধা হবে না। ব্যবসায়ীদের কোনও ঝুঁকিপূর্ণ পদক্ষেপ না করাই ভাল। অপ্রত্যাশিত সুযোগ উৎসাহিত করতে পারে। মিথুন রাশির জাতক-জাতিকাদের সংসার জীবন অশান্তির মধ্যেই কাটবে। আত্মীয়-বন্ধু গৃহে আগমন মনকে অশান্ত করতে পারে। বন্ধ আত্মীয়ের কথা মনকে ভারাক্রান্ত করতে পারে। স্বাস্থ্য ভাল যাবেনা। পায়ে বড় আঘাত লাগতে পারে। কোনও পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হওয়ার পথে বাধা আসতে পারে। কারও কথায় উপকার হতে পারে। কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভের সম্ভাবনা রয়েছে। চান বা না চান মন্দিরে ভ্রমণ হবে। মূল্যবান উপহার প্রাপ্তির যোগ রয়েছে। আবার কিছু খোয়া যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। খাদ্যরসিকদের জন্য বছরটা ভাল। কারণ বছরভর খাওয়াদাওয়া বেশ ভালই হবে। বিদ্যার্থীদের জন্য সময়টা অস্থির। প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্য গড়পড়তা দিন কাটবে। মনোমালিন্য অশান্তি লেগেই থাকবে। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্য সময়টা ভাল নয়।

প্রতিকার : হনুমানজির একটি ছবি সংগ্রহ করে সেটি ঠাকুরের সিংহাসনে রেখে প্রতিদিন স্নানের পর লালজবা বা অন্য কোনও লালফুল চরণে রাখুন। তারপর ২টি ধূপকাঠি দিয়ে আরতি করে ৩ বার হনুমানজির চরণে স্পর্শ প্রণাম করলে অনেক অশান্তি কেটে যাবে। প্রতি শনি ও মঙ্গলবার কুকুরকে মুরগি বা খাসির রান্না করা বা কাঁচা মাংসের একটা টুকরো খেতে দিন। এতে শারীরিক অস্বস্তি কাটবে। ঝামেলা থেকে মুক্তি মিলবে।

কর্কট : কর্কট রাশির জাতক-জাতিকাদের বছরভর শরীর,মন ভাল থাকবে না। যা সংসার জীবনের ওপর প্রভাব ফেলবে। কর্মক্ষেত্রেও অশান্তি লেগে থাকবে। আত্মীয়-স্বজনের কারণে খরচ বেড়ে যাবে। বাড়িতে আত্মীয়-স্বজন লেগেই থাকবে। অপ্রত্যাশিত আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা। তবে সমস্যা হবে না। ব্যবসায়ী বা পেশাদারদের জন্য বছরটা উদ্বেগের। চাকুরীজীবীদের জন্য বছর গড়পড়তা। কর্মপ্রার্থীদের জন্যও বছরটা হতাশাব্যঞ্জক। কিছু হারানোর সম্ভাবনা রয়েছে। কোনও খবর বিচলিত করতে পারে। তবে শুভ যোগ ও অর্থাগমের যোগ রয়েছে। দৈহিক আঘাত পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ বছর যাচাই না করে সকলকে চোখ বুজে বিশ্বাস করাটা উচিত হবে না। পরিকল্পনা ভেস্তে যেতে পারে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের সম্পর্কে চিড় ধরতে পারে। দৈনন্দিন মতবিরোধ লেগে থাকবে। নতুন প্রেমের ক্ষেত্রে সম্পর্ক তৈরির ক্ষেত্র প্রস্তুত হলেও তা বাস্তবায়িত হওয়ার সম্ভাবনা কম।

প্রতিকার : প্রতিদিন কুকুরকে যা পারবেন কিছু খেতে দিন। কোনও দিন যেন বাদ না যায়। এতে দেহমনের অস্বস্তি অনেকটা দূর হবে। বাধার হাত থেকে রেহাই মিলবে। এছাড়া পঞ্চনাগ বিশিষ্ট নারায়ণের ছবি সংগ্রহ করুন। স্নানের পর প্রতিদিন ২টি ধূপকাঠি জ্বালিয়ে আরতি করে একটি বোঁটা সমেত তুলসী নারায়ণের চরণে দিয়ে প্রণাম করবেন। ধীরে ধীরে নানা অস্বস্তি কেটে যাবে।

সিংহ : সিংহ রাশির জাতক-জাতিকাদের দেহ-মনে নানা অস্বস্তি থাকলেও কর্মক্ষেত্রে অনুকূল পরিবেশ আসবে। মানসিক চাপ কমবে। যে যাই কাজ করুন না কেন অর্থাগমের জন্য এই বছরটা শুভ। অর্থোন্নতির পাশাপাশি আর্থিক যোগাযোগ বাড়বে। পেশাদারদের জন্যও বছরটা ভাল। সৃষ্টিমূলক কাজে যুক্তদের সময়টা শুভ। দূরে ভ্রমণের সম্ভাবনা রয়েছে। ঐতিহাসিক জায়গায় গেলে পায়ে আঘাত পেতে পারেন। শত্রুকে জয় করবেন সারাবছর। আত্মীয়েরা বাড়িতে আসবেন। এতে খরচ বাড়বে। বিরক্তিও আসতে পারে। বাড়িতে শুভ অনুষ্ঠান হতে পারে। ভাল সংবাদ পেতে পারেন। সার্বিকভাবে খরচের চাপ এ বছরে কমবে। তবে সংসারের চাপ বাড়বে। সংসারে আর কারও কথায় বিরক্তি আসতে পারে। সিংহ রাশির জাতক-জাতিকা প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্য বছরটা ভাল। অভিমানজনিত অশান্তি হলেও সার্বিকভাবে অশান্তির মাত্রা কমবে। সদ্য প্রেমে পড়ে থাকলে একটা আনন্দের বছর কাটানোর জন্য তৈরি থাকুন। নতুন প্রেমে পড়তে চাইলেও সময়টা অনুকূল।

প্রতিকার : মহালক্ষ্মীর ছবি সংগ্রহ করে যে কোনও বৃহস্পতিবার দেখে পুজো শুরু করুন। স্নানের পর ২টি ধূপকাঠি জ্বালিয়ে আরতি করে ছবিতে ৩ বার স্পর্শ প্রণাম করবেন। একটু জল-মিষ্টি ভোগ দেবেন। কাজটা চালিয়ে গেলে অশেষ কল্যাণের আশীর্বাদধন্য হতে পারেন। এছাড়া প্রতি বৃহস্পতিবার কোনও দুর্গা মন্দিরে হলুদ বা লাল ফুল দিয়ে পুজো দিন। মন্দিরে না পারলে বাড়ির ঠাকুরের ছবিতে দিলেও চলবে। তবে দুর্গা মন্দির হলেই ভাল। এতে অনেক দুর্ভোগ কেটে যাবে।

কন্যা : কন্যা রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য বছরটা শুভ। স্বাস্থ্য স্বস্তি দেবে। কমবে মানসিক অশান্তি। শারীরিক ও মানসিক শান্তি মনকে খুশিতে ভরিয়ে তুলবে। খরচ কমবে। কর্মক্ষেত্রে উন্নতি হবে। স্বস্তি বিরাজ করবে। আয় বাড়বে। অযথা ঝামেলা থেকে মুক্তি পাবেন। রাগ, জেদ, অভিমানও কমবে। কোনও প্রতিভা বা কাজের জন্য প্রশংসা কুড়বেন। আগে থেকে ভেবে রাখা কিছু বাস্তবায়িত হবে। ভ্রমণ যোগ রয়েছে। মন্দিরেও ভ্রমণ হবে। এ বছর অনেক সুন্দর সুন্দর উপহার অপেক্ষা করছে। যা আপনাকে আনন্দিত করবে। ভাল কোনও খবর পেতে পারেন। শিল্পী, সাহিত্যিক, পেশাদারদের সময় ভাল যাবে। তবে লুকোনো শত্রু বাড়তে পারে। যা মাঝেমধ্যে মানসিক স্বস্তি নষ্ট করবে। কোনও কাজ একবারে হবে না। বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্য বছরটা গড়পড়তা। একসঙ্গে মন্দিরে যাওয়ার সম্ভাবনা। দুজনের কেউ কথা দিয়েও কথা না রাখতে পারে, এমন সম্ভাবনা রয়েছে।

প্রতিকার : প্রতি শুক্রবার মহিলা ভিখারিকে কোনও একটা ফল ও ইচ্ছেমত অর্থ দেবেন। সারা বছরে একটা শুক্রবারও বাদ না যাওয়া ভাল। এতে সংসার থেকে কর্মজীবন, সর্বত্র চলার পথে অস্বস্তি অনেকটাই দূর হবে। তাছাড়া মহালক্ষ্মীর ছবি ঠাকুরের আসনে রেখে স্নানের পর প্রতি বৃহস্পতিবার ২টি ধূপকাঠি দিয়ে আরতি করে স্পর্শ প্রণাম করুন। সংসার জীবন থেকে সার্বিক কল্যাণ হবে।

তুলা : তুলা রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য সময়টা এতদিন খারাপ ছিল। সবে ভাল হওয়া শুরু হয়েছে। ফলে ক্রমশ সময় বদলাবে। ভাল হবে। কর্মজীবনে উন্নতি হবে। অর্থভাগ্য সুপ্রসন্ন হবে। শুভ যোগে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা। হঠাৎ অর্থাগমও হতে পারে। তবে আত্মীয়দের জন্য কিছু অর্থ ব্যয় হতে পারে। আত্মীয়দের সঙ্গে কিঞ্চিত মনোমালিন্য ও মতবিরোধ হতে পারে। যাঁরা কলমচর্চায় যুক্ত, তাঁদের সুনাম বাড়বে। সম্মানও। স্বাধীন পেশার মানুষের জন্যও বছরটা শুভ। শরীর অনেকটাই অস্বস্তিমুক্ত হবে। শত্রুতার হাত থেকে মুক্তি পাবেন। কাজের জন্য প্রশংসিত হবেন। কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভের সম্ভাবনা রয়েছে। বছরে একাধিকবার ভ্রমণ যোগ রয়েছে। সুসংবাদ মনকে আনন্দ দেবে। এ বছর কোনও বড় সমস্যার হাত থেকে মুক্তি মিলতে পারে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্য সময়টা মিশ্র। কখনও খুশি কখনও অভিমানজনিত কষ্ট, দুই আসবে। তবে প্রেমে বা আন্তরিকতা তাতে কোনওভাবে বিনষ্ট হবে না। নতুন প্রেমে পড়ার জন্য সময়টা ভাল।

প্রতিকার : প্রতি শনিবার টগর বাদে ৯টা সাদা ফুল ও কলা বাদে যে কোনও একটি ফল কোনও প্রতিষ্ঠিত কালীমন্দিরে দক্ষিণা সহ দিয়ে আসতে হবে। সকাল থেকে রাতের মধ্যে যে কোনও সময়ে এটা করলেই হবে। কোনও শনিবার বাদ না দিয়ে করে যেতে হবে। দেহ-মনের অস্বস্তি মুক্তি, সংসার জীবনে সুখ ও কর্মজীবনে দুর্ভোগ অশান্তি থেকে রেহাই পাবেন।

বৃশ্চিক : বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের গত কয়েক বছর ভাল যায়নি। তবে এবছর তেমন কাটবে না। বছরটা অনেকটাই স্বস্তিতে কাটবে। দেহ-মনে স্বস্তি আসবে। বছরের অধিকাংশ দিন আনন্দে কাটবে। ব্যয় হলেও অর্থাগমে অসুবিধা হবে না। সৎ চেষ্টায় সাফল্য আসবে। সম্মান বাড়বে। গুণের জন্য প্রশংসা পাবেন। কর্মজীবন ও অর্থভাগ্যের উন্নতি হবে। কর্মক্ষেত্রে পরিবেশ অনুকূল থাকবে। কর্মোন্নতি হতে পারে। পেশা বা ব্যবসায়ে যোগাযোগ বৃদ্ধি হবে। কর্মপ্রার্থীদের নতুন কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দেবলয়ে ভ্রমণ হতে পারে। তবে তা বাড়ির কাছেই। বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকারা শত্রুকে জয় করবেন। কোনও পুরানো সমস্যার সমাধান হতে পারে। সন্তানের স্বাস্থ্য নিয়ে কিছুটা উদ্বেগ বাড়তে পারে। হাত থেকে পড়ে কোনও ভাল জিনিস ভেঙে যেতে পারে। বেড়াতে গিয়ে টাকা বা অন্য কোনও জিনিস খোয়া যেতে পারে। যার জন্য মন খারাপ হবে। কিঞ্চিত মানসিক অশান্তি থাকলেও বছরভর সাংসারিক, আর্থিক ও অন্যান্য দিকে স্বস্তি বজায় থাকবে। বিদ্যার্থীদের জন্যও বছরটা ভাল। বিদ্যায় উন্নতির পাশাপাশি বাড়িতে আত্মীয়-বন্ধুর আগমনে মন ভাল হবে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্যও বছরটা ভাল। সম্পর্ক ভাল থাকবে। একে অপরকে পছন্দের উপহার দেবেন। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্যও সময়টা ভাল।

প্রতিকার : কোনও শনিদেবের মন্দিরে সাদা বাতাসা ও সাদা ফুলের মালা আর যা মন চায় দক্ষিণা দিয়ে পুজো দিলে অনেক দুর্ভোগ কেটে যাবে। এছাড়া প্রতি শনিবার সারাদিনের মধ্যে যে কোনও সময়ে ভিখারিকে তৈরি করা খাবার খেতে দিন। যাতে তিনি পেলেই খেতে পারেন। যেমন, কচুরি, রুটি-তরকারি, পাউরুটি, মিষ্টি এমন খাবারগুলি। সঙ্গে দিন ইচ্ছেমত দক্ষিণা। সংসার জীবনে অনেক অশান্তি থেকে মুক্তি পাবেন। কর্মজীবনেও দুর্ভোগ কেটে যাবে।

ধনু : ধনু রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য বছরটা অস্বস্তিতেই কাটবে। স্বাস্থ্য মাঝেমধ্যেই ভোগাবে। মানসিক অস্থিরতা বাড়বে। কর্ম ও অর্থভাগ্যও সুপ্রসন্ন নয়। খরচ বৃদ্ধি ভোগাবে। কর্মজীবনে উদ্বেগ অশান্তি লেগেই থাকবে। নিমন্ত্রণ রক্ষায় ব্যয় বাড়বে। ভ্রমণ যোগ রয়েছে। মন্দিরেও ভ্রমণে যেতে পারেন। বিদ্যার্থী ও কর্মপ্রার্থীদের বছরটা বড় একটা ভাল যাবে না। কোনও ব্যক্তির সহায়তায় আপনার উপকার হবে। ধর্মের প্রতি আকর্ষণ বাড়বে। নিকট আত্মীয়ের বাড়িতে কোনও শুভ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেন। তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে পায়ে আঘাত লাগতে পারে। আইনি ঝামেলা এড়িয়ে চলাই ভাল। বিবাহিতদের সাংসারিক শান্তি নষ্ট হবে। শত্রু বাড়বে। তাই মানুষজনকে বিশ্বাস কম করুন। ঝুঁকিরা কাজ হলে তা এড়িয়ে চলুন। প্রেমিক-প্রেমিকারা সারা বছর এদিক ওদিক ঘুরে দিন কাটাবেন। ভালমন্দ মিশিয়ে দিনগুলো কেটে যাবে। মন্দিরে যেতে পারেন। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকরা একটু সাবধানে পা বাড়াবেন। সময়টা প্রতিকূল।

প্রতিকার : শনি ও মঙ্গলবার নিত্য পুজো হয় এমন হনুমান মন্দিরে জবা আর সুমিষ্ট পাকা ফল দিয়ে পুজো দিন। বিপদ থেকে রক্ষা পাবেন। সংসার জীবনে সুখ আসবে। কর্মজীবনে অশান্তি কেটে যাবে। এছাড়া প্রতি শনি ও মঙ্গলবার যে কোনও সময়ে কোনও কালীমন্দিরে কলা ছাড়া অন্য যে কোনও ফল, ফুল ও দক্ষিণা দিয়ে পুজো দিন। আর গলায় হনুমানজির একটা লকেট লাল কার দিয়ে ধারণ করুন। দুর্ভোগ কেটে যাবে।

মকর : মকর রাশির জাতক-জাতিকাদের দেহ-মন ভাল যাবে না। স্বাস্থ্য ভোগাবে। ঝামেলা বাড়বে। বাড়বে খরচ। আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনাও রয়েছে। স্বাধীন পেশার মানুষদের জন্য বছরটা গড়পড়তা হলেও ব্যবসায়ীদের কোনও ঝুঁকির পদক্ষেপ উচিত হবে না। ব্যবসায়ীদের উদ্বেগ নিত্যসঙ্গি হবে। কর্মজীবনে লক্ষণীয় কোনও পরিবর্তন হবে না। দূরে ভ্রমণে বিপত্তির সম্ভাবনা রয়েছে। কোনও ব্যক্তি বা মহিলার বিশেষ সহায়তা লাভ করতে পারেন। সুসংবাদ পেতে পারেন। তবে আত্মীয়-বন্ধুরা আনন্দ যেমন বাড়াবে, তেমনই বিরক্তিও। ঘনিষ্ঠ কারও সঙ্গে মতবিরোধ চরমে উঠতে পারে। যা দীর্ঘকালীন মানসিক অশান্তির জন্ম দিতে পারে। এই বিরক্তি থেকেই আত্মীয় বিচ্ছেদ হতে পারে। ধর্মের প্রতি আকর্ষণ বাড়বে। সদগুরু লাভ হতে পারে। মূল্যবান উপহার লাভ হতে পারে। প্রেমিক-প্রেমিকাদের ভালমন্দ মিশিয়ে কেটে যাবে বছরটা। অভিমানে কথা কিছুদিন বন্ধ থাকতে পারে। উপহার সেই মেঘ কাটিয়ে দেবে। তবে নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্য বছরটা ভাল নয়।

প্রতিকার : প্রতিদিন কুকুরকে কিছু খেতে দিন। একটা কুকুর না খেলে অন্য একটা কুকুরকে দিন। সেইসঙ্গে কোনও ভিখারিকে প্রতি শুক্রবার তৈরি খাবার খেতে দিন। তখনই খেতে পারেন এমন খাবার। সেইসঙ্গে ইচ্ছেমত কিছু দক্ষিণা। সারা বছরের অনেক দুর্ভোগ ভোগান্তি কেটে যাবে।

কুম্ভ : কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকাদের এ বছর স্বাস্থ্য ক্রমশ ভাল হবে। গত বছরগুলোয় স্বাস্থ্য নিয়ে যে ভোগান্তি গেছে তা অনেকটা কাটবে। কর্মজীবনও স্বস্তির। অর্থভাগ্যও সুপ্রসন্ন। হঠাৎ অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা রয়েছে। শত্রুতা করেও কেউ ক্ষতি করতে পারবেনা। বরং অনেক দিনের সমস্যা মিটে যাবে। কর্মপ্রার্থীরা কর্মলাভ করতে পারেন। যে যাই কাজ করেন, তাঁর সম্মান নিজ ক্ষেত্রে বাড়বে। সারা বছর সুসংবাদ পেতে পারেন। দূরে ভ্রমণ যোগ রয়েছে। আত্মীয়দের কাছ থেকে উপহার প্রাপ্তি হতে পারে। বিবাহিত মানুষদের সাংসারিক অশান্তি ভোগ করতে হতে পারে। সন্তানদের নিয়ে অশান্তি ভোগের সম্ভাবনাও রয়েছে। বেড়াতে গিয়েও পরিবারের কাউকে নিয়ে ভোগান্তি হতে পারে। টুকটাক পারিবারিক ঝগড়া হতে পারে। গায়ে আঘাত লাগতে পারে। কেটেও যেতে পারে। তবে সার্বিকভাবে বছরটা ভাল। আত্মীয় বন্ধুদের থেকে উপকার পেতে পারেন। প্রেমিক প্রেমিকাদের মধ্যে মাঝেমধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে। তবে তাতে আন্তরিকতায় ভাটা পড়বে না। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্যও বছরটা অনুকূল।

প্রতিকার : সোমবার সারাদিনে যে কোনও সময়ে সাদা পদ্ম, সাদা শাপলা, বা সাদা সুগন্ধি কোনও ফুল কোনও শিবমন্দিরে শিবলিঙ্গ স্পর্শ করে রেখে আসতে হবে। সারা বছর এটা করতে থাকলে সার্বিক কল্যাণ হয়। দুর্ভোগ কেটে যায়। তাছাড়া প্রতি শনিবার কোনও শনিদেবের মন্দিরে সাদা বাতাসা, সাদা ফুলের মালা ও দক্ষিণা সহ পুজো দিন। দুর্ভোগ অশান্তি থেকে মুক্তি পাবেন।

মীন : মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের এ বছর শরীর স্বাস্থ্য কিছুটা ভাল যাবে। অর্থভাগ্যও ভাল যাবে। হঠাৎ অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা রয়েছে। হতে পারে বাড়তি আয়। তবে খরচও কম হবে না। শত্রু থেকে ক্ষতির সম্ভাবনা নেই। পূর্ব পরিকল্পনা বাস্তব রূপ পেতে পারে। কর্মপ্রার্থীরা কর্মলাভ করতে পারেন। পুরানো সমস্যা মিটে যেতে পারে। মাঙ্গলিক অনুষ্ঠানে যোগদান, সদগুরুর আশ্রয়লাভ যোগ রয়েছে। ভ্রমণ যোগও রয়েছে। কাছেপিঠে মন্দিরে ভ্রমণ হতে পারে। কর্মক্ষেত্রে উন্নতি হবে। প্রশংসিতও হতে পারেন। কারও ভালবাসায় মন প্রসন্ন হতে পারে। কখনও কোনও সংবাদে মন খারাপ হবে, কখনও আবার ভাল সংবাদে মন ভালও হবে। তবে সারা বছর কিছুটা মানসিক চাপ থাকবে। প্রেমিক প্রেমিকাদের সারাবছর বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে আনন্দে কাটবে। নতুন প্রেমে ইচ্ছুকদের জন্যও বছরটা ভাল। সার্বিকভাবে মীন রাশির জাতক জাতিকাদের বছরটা ভালই কাটবে।

প্রতিকার : ছয় মাথা কার্ত্তিকের ছবি ঠাকুরের সিংহাসনে রেখে প্রতিদিন স্নানের পর আরতি করে ৩ বার স্পর্শ প্রণাম করলেই চলবে। সারা বছর অনেক দুর্ভোগ থেকে রক্ষা পাবেন। কেটে যাবে বাধা-বিপত্তি।

(চিত্রণ – সংযুক্তা)

About Sibsankar Bharati

স্বাধীন পেশায় লেখক জ্যোতিষী। ১৯৫১ সালে কোলকাতায় জন্ম। কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্যে স্নাতক। একুশ বছর বয়েস থেকে বিভিন্ন দৈনিক, সাপ্তাহিক পাক্ষিক ও মাসিক পত্রিকায় স্থান পেয়েছে জ্যোতিষের প্রশ্নোত্তর বিভাগ, ছোট গল্প, রম্যরচনা, প্রবন্ধ, ভিন্নস্বাদের ফিচার। আনন্দবাজার পত্রিকা, সানন্দা, আনন্দলোক, বর্তমান, সাপ্তাহিক বর্তমান, সুখী গৃহকোণ, সকালবেলা সাপ্তাহিকী, নবকল্লোল, শুকতারা, দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়ার নিবেদন 'আমার সময়' সহ অসংখ্য পত্রিকায় স্থান পেয়েছে অজস্র ভ্রমণকাহিনি, গবেষণাধর্মী মনোজ্ঞ রচনা।

Check Also

Debrigarh Wildlife Sanctuary

নীল সবুজের দেশে

এই ভ্রমণের যাত্রা শুরু করতে হবে সম্বলপুর থেকে। আগেই ব্যবস্থা করতে হবে মোটরের। বাস যায় …

53 comments

  1. Abhijit banerjee

    Ai rashifol tol kichu hay na,kaaj karo fol pabei

  2. SUSHANTA BHATTACHERJEE

    Keu keu bolen je Rashifal tol kichu na. Ta besh bhalo. Karon Jara alpo kichu porasona kore nijeder totha kothito Bigyan monosko mone kore tara eta boletheke. Eta Notun kichu noy. Asole Amader kichu lokher sobav holo NIJER BAPRE SORIR KARAP HOLE TAKE DEKHE NA KINTU SOSURER PIT CHULAKE TA CHULKANOR JONNO TARATARI SOSUR BARI JAY. NIJER GHORE SANTE NEI SE JAY PARAR MONCHE BA R O KONO BORO MONCHE JAY SANTI RAKHAR BOKTITA DITE. tARAI BOLE ESOB KICHU NA. BORAHOMIHIR, ARJOBHOTO. Birbol er amalo to r ei FACEBOOK chilo na tai tara eta kichu noy bolte parini tara uplodhi kore geche r ta ABISKAR KOREGECHE 500BC THEKEJA JANA JAY EKTU AAGE PORE BATIKROME. SOB BAJE KAJ KORE CHILO TOKHON TO R EKO MANUSH BASTO CHILO TA TAI FALTU SOMOY EI SOB KAJ KOREGECHE. Bharat er Sanscrit ta abishkar kore che ja Bhasa ke somridho korto ja aj amader deshe ochol kintu aj GERMAN or America seta tader deshe chalu koreche. ki jonno? oder jukti eta te naki onek age ei Barat abhiskar korerekhe jeta oder desher lok na bishas kore na ba mante chay na seta or nijer dekhe chalu kore silpo biplob koreche. r o egoche. amar oi susurer pith chulkachi American ra ja chere diche ta niye nacha nachi korchi. Tai Mohan Bigani (Scientiest) ra boleche je ekta odrisho Sokti ache jeta amader control kore jeta tini nije onubhav korechen. abaar amader kunj lacher lok THAKU RAMKRISHNA BOLECHEN TER ECCHA CHARA KICHU HOY. NAKI GACHER PATA O NORE NA. Sob baje kotha gramar lok bhul bhal boke che. Abar eta bolechen JOTO MOT TOTO PATH. tai ei ta kei mene nilam joto mot tot path tai jara mante chai na tader manar dorkar nei kaj je korbe se kaj ta pay kothay debe ke? Kau ke aaghat dewar jonno ei lekha noy amar kintu eta lekha ei jonno je Bondho (Chor Chamar Dilip kumar ) sob jay te sob line ache ta bole ei sastro ta mitha eta bodhhoy na bolle bhalo hoto. Medical science e poreche jara ba Doctor jara tader bhule to roj koto lok mara jay tahole ki Medical science Bhul na sei doctor er diagonist bhul. Koi tokhon to kau ke bulte sona jay na je Medical science ta bhul kaj kore jao sob hoyejabe. Tai nijer nijer biswas ta nijer nijer kache rakhe e bhalo pochono nai hote pare tabole kau k bhul promanite korte jawa bhul. amar ei lkhete jodi kichu banan bhul ba karur mone aaghat lage to TAR KACHE ANURODH. NIJO GUNE MAP KORBEN.

    • Sob kichur mul kendro holo MON. Ei moner modhye Valo /kharap 2ti gun thake, kew Valo ta prokas kore, kew kharap. Tobe sbkichur age jodi ‘VALO ei kotha ta thakto. Tahole khub valo hoto.. sokole sobta bujte parto..
      Amr torof theke ei rashi fol bisesoggo der onk onk dhonno bad janai, apnara onk calculation kore, SOKOLER jono eto tottho dichen, asa korbo r o onk notun notun tottho.
      VALOBASA SORBOMOY
      HOBE VALOBASARI JOY
      SOKOLE KHUB VALO THAKBEN SBSMY

  3. Trust r Depend, duti vinno bostu………aami Trust Kofi, but Dependable noi. Tai roj-kaar prediction ta, ekdom nitght te miliye ni……more over aamr khetre 70-30 positive….

  4. Trust r Depend, duti vinno bostu………aami Trust Kori, but Dependable noi. Tai roj-kaar prediction ta, ekdom nitght te miliye ni……more over aamr khetre 70-30 positive….

  5. Sir,
    Ami apner chamber a jete chai.. doya kore jodi address r timing ta bolen khub upokar hoi

  6. আমার নাম -কানাই বর্মন
    জন্ম তারিখ-১৯৯৩/০২/১৭(eng)
    west bengal-dinhata,cooch behar
    আমার রাশিটা কি বলতে পারবেন ?

  7. Gautam Bhowmik

    Thank you very much……….

  8. Jharna Dey

    আমার রাশিফল পড়লাম ,,,সব জানতে পারলাম । খুব ভাল

  9. Basudev Chowdhury

    Ami mean rasir jatak..potikar babod ja diyechen ta Ami palon korte chair…kintu 6 matha wala kartick er pic kothai pabo..janaly upokar pabo..

  10. Basudev Chowdhury

    Apnar phone no ta pele sarasari Katha boltham

  11. Jagannath Mondal

    Amar date of birth _11/05/1983 ???

  12. Pinakpani Debnath

    THANKS FOR THESE INFORMATION…

  13. Himangshu Biswas

    জ্যোতির্বিদ নয় জ্যোতিষ । রাশিফল জ্যোতির্বিদের বিষয় নয় জ্যোতিষশাস্ত্রের বিষয় । জ্যোতির্বিদ আকাশের গ্রহ ণক্ষত্রের অবস্থান গতিবিধি সম্পর্কে চর্চা করে যার সঙ্গে ভাগ্যের কোনো সম্পর্ক নেই ।

  14. Ruma Das

    Onek age gachilam ekhon gele notun na puronote nam lakhabo?

  15. Lipika Saha

    Ami enake anek(27) dhore chini.Khub valo bolen.enar pH no kivabe pabo.

  16. kono ak potrika te apnar lekha “sadhu sanga” pore chilam, tar por thakei apnake dakhar akta tribo basona none jage, Akbar apnake dekthe chai, ki vabe jogajog korbo vabte parchi na, amar e-mail I’d, proy9322@gmail.com
    pls aktu dakha korar onumoti deben

  17. What is my rashi

  18. এটা একটা ভাল প্রচেসটা ।ধ্ন্যবাদ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *